করোনা চিকিৎসায় বিশেষ বিসিএসের সিদ্ধান্ত হয়নি পিএসসিতে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:৩৬ পিএম, ০৮ জুলাই ২০২০

নতুন করে দুই হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দিতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে একটি প্রস্তাব পাঠিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। তবে এ-সংক্রান্ত কোনো সুপারিশ এখনো পাবলিক সার্ভিস কমিশনে (পিএসসি) আসেনি। প্রস্তাব আসলে কমিশন সভা করে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে জানিয়েছে পিএসসি।

জানা গেছে, করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ পরিস্থিতি মোকাবিলায় বিশেষ বিসিএসের মাধ্যমে জরুরি ভিত্তিতে আরও দুই হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দেবে সরকার। ইতোমধ্যে এ বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এখন প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন নেবে। এরপর এ বিষয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করবে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পিএসসি চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক বুধবার (৮ জুলাই) জাগো নিউজকে বলেন, ‘নতুন করে চিকিৎসক নিয়োগ-সংক্রান্ত কোনো প্রস্তাব আমাদের কাছে আসেনি।’

পিএসসি চেয়ারম্যান বলেন, ‘চিকিৎসক নিয়োগের প্রস্তাব আসলে কমিশন সভা করে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। চিকিৎসক নিয়োগে নতুন করে স্বাস্থ্য ক্যাডারের বিশেষ বিসিএস পরীক্ষা আয়োজন করা হবে? নাকি ৩৯তম বিসিএসে চূড়ান্ত ফলাফলে নন-ক্যাডার থেকে নেয়া হবে সে বিষয় সিদ্ধান্ত হবে। তবে বিশেষ আয়োজন করা হবে কি-না, সে বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।’

এর আগে শুধুমাত্র চিকিৎসক নিয়োগ দিতে ৩৯তম বিশেষ বিসিএস নেয় সরকার। এই বিসিএসের মাধ্যমে চার হাজার ৫৪২ জন সহকারী সার্জন এবং ২৫০ জন সহকারী ডেন্টাল সার্জন পদে নিয়োগ পান।

৩৯তম বিশেষ বিসিএসের লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেও পদ না থাকায় আট হাজার ১০৭ জন নিয়োগের জন্য সুপারিশ পাননি। করোনাভাইরাস সংকট মোকাবিলায় তাদের মধ্য থেকে গত ৪ মে দুই হাজার জনকে সহকারী সার্জন পদে নিয়োগ দেয়া হয়। তবে করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় আরও দুই হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দিতে চায় সরকার।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের প্রস্তাবনায় বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় দেশের সরকারি হাসপাতালগুলোকে প্রস্তুত করা হয়েছে। পাশাপাশি বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টার এবং ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের একটি মার্কেটকে আইসোলেশন সেন্টারে রূপান্তর করা হয়েছে। সারাদেশে এ রোগের চিকিৎসা দিতে পারে এমন বেসরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং বেসরকারি ক্লিনিকের ম্যাপিং করা হচ্ছে। এসব হাসপাতালে স্বাভাবিকভাবে আরও চিকিৎসক ও নার্স প্রয়োজন হবে।

জরুরিভিত্তিতে চিকিৎসক নিয়োগ দেয়ার তাগিদ দিয়ে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ বলছে, প্রয়োজনে এ-সংক্রান্ত প্রস্তাব পরে প্রশাসনিক উন্নয়ন-সংক্রান্ত সচিব কমিটির অনুমোদনসহ যাবতীয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে।

এমএইচএম/এসআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]