আবাসিক বিদ্যুৎ বিল : বিলম্ব মাশুল মওকুফের সময় বাড়ল

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৪:২২ পিএম, ১৯ জুলাই ২০২০

মহামারি করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) কারণে সৃষ্ট উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আবাসিক গ্রাহক শ্রেণির (এলটি-এ এবং এমটি-১) ফেব্রুয়ারি-জুন মাসের বিদ্যুৎ বিল ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে পরিশোধের ক্ষেত্রে বিলম্ব-পরিশোধ মাশুল ছাড়াই পরিশোধ করা যাবে। বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন এ বিষয়ে সম্মতি দিয়েছে।

রোববার (১৯ জুলাই) বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার মীর মোহাম্মদ আসলাম উদ্দিন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, করোনাকালীন সাধারণ ছুটির সময় ব্যাংকিং কার্যক্রম সীমিত থাকায় গ্রাহকরা বিলম্ব-পরিশোধ মাশুল ব্যতিরেকে বিদ্যুৎ বিল পরিশাধ করলেও অনেক বিল বকেয়া রয়ে যায়। তাই আবাসিক গ্রাহকদের বিল ফেব্রুয়ারি, মার্চ এবং এপ্রিলের বিদ্যুৎ বিলের সঙ্গে মে ও জুন মাসের বিদ্যুৎ বিল অন্তর্ভুক্ত করে অর্থাৎ ফেব্রুয়ারি-জুন মাসের বিদ্যুৎ বিল ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে পরিশোধের ক্ষেত্রে বিলম্ব-পরিশোধ মাশুল ছাড়াই পরিশোধ করা যাবে।

উল্লেখ্য, ওই সময়ে যে সব সম্মানিত গ্রাহক বিলম্ব মাশুল/অতিরিক্ত বিল প্রদান করেছেন তা সংশ্লিষ্ট বিতরণ কোম্পানি সমন্বয় করছে বা করবে। কোভিড-১৯ এর কারণে মার্চ-এপ্রিল মাসে গড় বিল করায় যদি স্লাব (বিলের কাঠামো) পরিবর্তন হয়ে কোনো গ্রাহক ক্ষতিগ্রস্ত হন, তাহলে তা চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কোনো অবস্থায় গ্রাহকদের ব্যবহৃত বিদ্যুতের চেয়ে বেশি অর্থাৎ অতিরিক্ত বিল পরিশোধ করতে হবে না।

এমইউ/এসআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]