সেই ‘ডিপজল’ বিক্রি হলো দুই লাখ ৮৫ হাজারে

মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল
মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল , বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:৫৮ পিএম, ০১ আগস্ট ২০২০

রাজধানীর লালবাগ থানাধীন রসুলবাগ এলাকার ব্যবসায়ী বাহার উল্লাহ বাদল প্রতিবছর ঈদের আগের দিন এক লাখ থেকে সোয়া লাখ টাকার বাজেটে কোরবানির জন্য তিনটি গরু কিনে থাকেন। সেই ধারাবাহিকতায় শুক্রবার (৩১ জুলাই) সকালে গরু কিনতে যাওয়ার সময় খবর পান- হাটে গরু নেই। যাও কিছু আছে সেগুলোর দাম দ্বিগুণ। কোরবানির গরু কেনা নিয়ে চিন্তায় পড়ে যান তিনি।

এরপর তার পরিচিত একজন জানান, কুমিল্লায় ভালো গরু আছে। ওইদিন কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে গাড়ি ভাড়া করে কুমিল্লায় যান। সেখানে গিয়েও হতাশ হন তিনি। গরু সম্পর্কে তাকে যা বলা হয়েছিল সে রকম নয়। কুমিল্লা থেকে নারায়ণগঞ্জ, সাভারসহ কয়েকটি হাট ঘুরে পছন্দসই গরু না পেয়ে বাড়ি ফিরে আসেন তিনি। বাড়ি ফিরে আসায় পরিবারের সদস্যরা মন খারাপ করেন।

dipjol

শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে তিনি খবর পান হাজারীবাগ কোরবানির পশুর হাটে বিশাল আকারের ‘ডিপজল’ নামের যে গরুটি দুই-তিন দিন আগে দেখে এসেছিলেন সেটি বিক্রি হয়নি। ওই সময় গরুর দাম ছয় লাখ টাকায় চেয়েছিলেন ব্যাপারী। রাত ১২টার পর তিনি হাজারীবাগ হাটে ছুটে যান। এরপর শুরু হয় দরদাম। অনেকক্ষণ দামাদামি শেষে তিনি দুই লাখ ৮৫ হাজার টাকায় গরুটি কিনে নেন।

দিনাজপুরের গরু ব্যাপারী চার লাখ টাকার নিচে গরুটি বিক্রি করবেন না বলে জানালেও শেষ পর্যন্ত বাড়িতে ফেরত নেয়ার কথা ভেবে বিক্রি করে দেন।

dipjol

শনিবার (১ আগস্ট) রাতে এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে বাদল মিয়া বলেন, আল্লাহ-তায়ালা আমার ভাগ্যে কোরবানির জন্য এ গরুটি নির্ধারণ করে রেখেছিলেন। তা না হলে সারাদিন কুমিল্লা, নারায়ণগঞ্জ ও সাভারে ঘুরে শেষ পর্যন্ত কেন বাড়ির কাছ থেকেই কোরবানির গরু কিনতে হলো।

তিনি জানান, পরিবারের সদস্যরাও বিশাল আকারের গরুটি দেখে খুবই খুশি। গরুটির ওজন ৩২ মণ। রোববার গরুটি কোরবানি করা হবে। কসাই গরুটি বানিয়ে দেয়ার জন্য ২৫ হাজার টাকা চেয়েছেন।

এমইউ/বিএ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]