যারা দুর্নীতি করছেন তারা আজ থেকে তওবা করুন : চসিক প্রশাসক

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক চট্টগ্রাম
প্রকাশিত: ০৭:৩৪ পিএম, ০৬ আগস্ট ২০২০

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনে (চসিক) কর্মরত যারা দুর্নীতি করছেন তাদেরকে আজ থেকে তওবা করার আহ্বান জানিয়েছেন সদ্য নিযুক্ত প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন।

বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার প্রথম দিন কর্মকর্তাদের সঙ্গে পরিচিত পর্বে তিনি এসব কথা বলেন।

খোরশেদ আলম সুজন বলেন, আমি কিন্তু উদার না, যারা দুর্নীতি করছে তারা তওবা করে ফেলুন আজ থেকে। যারা দায়িত্বের সঙ্গে বেঈমানি করবেন তাদের ছাড় দেব না, ক্ষমা করব না। না পারলে দায়িত্ব ছেড়ে দেব, তবুও অন্যায়ের সঙ্গে আপস করব না।

সুজন বলেন, অপরাধ করাটা অপরাধ না, তা স্বীকার না করা অপরাধ। এখানে যারা আছেন সবাই জ্ঞানী-গুণী মানুষ, আপনাদের জ্ঞান-প্রজ্ঞাকে কাজে লাগান। আজ সকালে আসার সময় নিউ মার্কেট জিপিওয়ের সামনে ময়লা দেখেছি সকাল, ৯টার সময়। কেন এত সকালে ময়লা থাকবে। পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তাদের আহ্বান জানাব, ভবিষ্যতে এ ময়লা আর দেখতে চাই না। বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিয়ে নাছির ভাই অনেক কাজ করছেন, সেটা সাকসেসফুল করতে হবে।

তিনি বলেন, যেদিন বৃষ্টি হবে সেদিন আমিও থাকব, কোথায় পানি জমছে তা সরেজমিনে দেখব। ঘরে বসে কাজ করার দিন শেষ। আমরা মহিউদ্দিন চৌধুরীর কর্মী, কিভাবে কাজ করতে হয় তা আমরা জানি।

চসিককে দলীয় কার্যালয় বা পারিবারিক করা হবে না জানিয়ে সুজন বলেন, বাড়ি থেকে বের হবার সময় আমার সাথে চসিকের গেইট পর্যন্ত আমার ছেলে এসেছে, তাকে ভেতরে ঢুকতে দেইনি। এখানে তার কোনো কাজ নেই, ঘরে বসে তাদের সাথে লুড়ু খেলব, কিন্তু এখানে আপনারা সব আমার।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, একদিনের মিনিস্টার সিনেমা দেখেছি, আমি ১৮০ দিনের প্রশাসক। প্রত্যেক দিন, মুহুর্তে কাজ করব চ্যালেঞ্জ নিয়ে। জনস্বাস্থ্যের নিরাপত্তার জন্য খাদ্যে ভেজাল বন্ধ করার জন্য বিএসটিআইকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করব। এক সপ্তাহ ১০ দিন গেলে বুঝবেন আমি কী করতে পারব কী পারব না।

সুজন বলেন, সবচেয়ে আশার কথা, যিনি আমাকে দায়িত্ব দিয়ে এখানে পাঠিয়েছেন তিনিই এ শহরের দায়িত্ব নিয়েছেন। কাজেই উন্নয়ন নিয়ে চিন্তা করার কোনো কারণ নেই। আমাকে পুকুরে নামতে দেন, নামার পরে দেখবেন কিভাবে সাঁতরাবো সেটা।'

গত ৫ বছর মেয়র নাছির অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন উল্লেখ করে খোরশেদ আলম সুজন বলেন, মেয়াদ শেষ হলে সবাইকে দায়িত্ব ছাড়তে হবে। কিন্তু কর্মকতা যারা আছেন, তারা থাকবেন সব সময়। আমাকে সহযোগিতা করবেন আশা করি। প্রশাসক বা মেয়র হচ্ছে শীর্ষ পদ। প্রধানমন্ত্রী নিযুক্ত প্রশাসক হিসেবে সবার কাছে আন্তরিক সহযোগিতা চাচ্ছি। চসিককে দলীয় কার্যালয় বানাব না। এখানে নগরবাসীকে সেবা দেয়ার জন্য কাজ করব।

তিনি বলেন, আমরা মিলেমিশে আমাদের শৈশব, কৈশোর এ শহরে কাটিয়েছি। পৃথিবীর কাছে এ শহরের গুরুত্ব অনেক, অনেকে আমার কাছে জানতে চান। চট্টগ্রাম শহরে জলাবদ্ধতা প্রধান সমস্যা, কিন্তু আমি এ শহরে জলাবদ্ধতা দেখি না, যা হয় সেটা জলজট। কিছুক্ষণ জমে থাকার পর কয়েক ঘণ্টা পর তা নেমে যায়। এ জলজট নিরসনের জন্য প্রধানমন্ত্রী বিশাল বাজেটের কাজ দিয়েছেন, যা সেনাবাহিনী করছে। আশা করি, জলজট সমস্যা আগামী বছর থেকে অনেকটা সমাধান হবে।

তিনি বলেন, আমি আপনাদের সহযোগিতা নিয়ে কাজ করতে আসছি। আগামী ৫ বছর পর এ শহর সিঙ্গাপুরের চেয়ে উন্নত শহর হবে।

গণমাধ্যমের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সুজন বলেন, নাগরিক আন্দোলন করার সময় আপনাদের সহযোগিতা পেয়েছি। এখন আপনারা আমাকে সহযোগিতা করবেন। সমালোচনাকে আমি ভয় পাই না। তবে যৌক্তিক সমালোচনা আশা করব। নগরের সমস্যাগুলো তুলে ধরবেন, আমাকে ১৮০ দিন সময় দিয়েছে, এ সময়টা কাজে লাগিয়ে কাজ করব। মানুষ হিসেবে ভুল হতে পারে। তাই ভুলগুলো তুলে ধরবেন আপনারা। আল্লাহ পাক অনেক দিয়েছেন, মানুষের কাছে যাওয়ার সুযোগ হয়েছে। কেউ আমাকে সন্ত্রাস বা অমুক-সমুক বলে না। এটাই আমার তৃপ্তি।

ctg

সুজনকে সহযোগিতার আহবান নাছিরের-

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) প্রশাসকের দায়িত্বভার গ্রহণ করা খোরশেদ আলম সুজনকে সহযোগিতা দিতে কর্মকর্তা ও সাংবাদিকদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন সদ্য বিদায়ী সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, প্রশাসক হিসাবে সুজন ভাই যদি কোনো সহযোগিতা চান, তাহলে আমি আমার অবস্থান থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করব। প্রধানমন্ত্রী তৃণমূল থেকে উঠে আসা পোড় খাওয়া একজন নেতাকে মূল্যায়ন করেছেন, সে জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

সাংবাদিকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, সাংবাদিক ভাইদের প্রতি আহ্বান জানাব, সুজন ভাইকে সহযোগিতা করবেন আপনারা। কোনো নিউজ করার আগে তার সত্যতা যাছাই করে করবেন। আপনারা সহযোগিতা করলে সুজন ভাইয়ের কাজ করতে সুবিধা হবে না।

আ জ ম নাছির বলেন, আমি এ শহরের সন্তান, এ শহরে বেড়ে ওঠা। আমার দায় ও দায়িত্ববোধ আছে এ শহরের প্রতি। মেয়রের দায়িত্বে না থাকলেও একজন নাগরিক হিসেবে সবসময় নগরবাসীর পাশে থাকব।

কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আমাকে যেভাবে সহযোগিতা করেছেন, আরও বেশি করে নবনিযুক্ত প্রশাসককে সহযোগিতা করবেন বলে আমি আশাবাদী।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামসুদ্দোহা, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মফিদুল আলম, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল সোহেল আহমদ ও প্রধান নগর পরিকল্পনা কর্মকর্তা রেজাউল করিম প্রমুখ।

এর আগে বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) সকালে সদ্য বিদায়ী মেয়র আজম নাছির উদ্দিনের কাছ থেকে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব বুঝে নেন খোরশেদ আলম সুজন। এ সময় তাকে স্বাগত জানান চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামসুদ্দোহা।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ৬ আগস্ট আ জ ম নাছির উদ্দীন মেয়রের দায়িত্ব নিয়েছিলেন। স্থানীয় সরকার আইন অনুযায়ী পর্ষদের মেয়াদ পাঁচ বছর। এই হিসেবে বর্তমান পর্ষদের মেয়াদ শেষ হয়েছে ৫ আগস্ট।

নিয়ম অনুযায়ী মেয়াদপূর্তির ১৮০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করতে হবে। সে হিসেবে ২৯ মার্চ ভোটের তারিখ নির্ধারণ করে নির্বাচন কমিশন

এফআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]om