করতোয়ায় ডুবে জাবি শিক্ষার্থী সিয়ামের মৃত্যু

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:২৮ পিএম, ০৭ আগস্ট ২০২০

আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) শাখার সহ-সম্পাদক আল মুহাইমিন সিয়াম শুক্রবার (৭ আগস্ট) পৌনে ৪টায় গাইবান্ধার করতোয়া শাখা নদীতে ডুবে মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের ৪৮তম আবর্তনের শিক্ষার্থী আল মুহাইমিন সিয়ামের গ্রামের বাড়ি বগুড়া জেলায়। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সালাম বরকত হলের আবাসিক শিক্ষার্থী ছিলেন। গাইবান্ধায় নানা বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলেন তিনি।

সিয়ামের সঙ্গে থাকা জাবির বঙ্গবন্ধু ও তুলনামূলক সাহিত্য কেন্দ্রের ৪৮তম ব্যাচের শিক্ষার্থী রোহান বলেন, সিয়াম ও আমরা কয়েকজন বন্ধু গাইবান্ধার হাসবাড়ির করতোয়া শাখা নদীতে দুপুর ১টার দিকে গোসল করতে যাই। গোসল করে ওঠার সময় দেখি, সিয়াম ও আমার আরেক বন্ধু সাজিদ ডুবে যাচ্ছে। পরে আমরাসহ গ্রামের মানুষ এসে সিয়াম ও সাজিদকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাই। হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

সিয়ামের অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছে ‘আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান’ কেন্দ্রীয় কমিটি। এক শোকবার্তায় সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. সাজ্জাদ হোসেন, প্রেসিডিয়াম সদস্য জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন ড. কাজী সাইফুদ্দিন, শহীদ এমপি নুরুল হক হাওলাদারের কন্যা জোবায়দা হক অজন্তা, জাবির প্রাক্তন ছাত্র ও প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সেক্রেটারি ইমরুল কায়েস রানা, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হারুন-অর রশিদ রনি, আল আমিন মৃদুল, আব্দুল্লাহ আল মামুন, আজহারুল ইসলাম অপু, সৈয়দ দিদারুল ইসলাম ও দপ্তর সম্পাদক আহমাদ রাসেল সিয়ামের শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান। তারা তার বিদেহি আত্মার মাগফিরাতও কামনা করেন।

এইচএস/এমএআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]