দোহারে সালিশে ধর্ষককে জরিমানা : মহিলা পরিষদের উদ্বেগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:২৯ এএম, ১৪ আগস্ট ২০২০

ঢাকার দোহারে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ এবং এ ঘটনায় সালিশে ধর্ষককে ৯০ হাজার টাকা জরিমানা করায় গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ। এ ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানায় সংগঠনটি।

বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) মহিলা পরিষদের সভাপতি ডা. ফওজিয়া মোসলেম এবং সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে এ ক্ষোভ ও উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

বার্তায় বলা হয়, দোহারে বিয়ের প্রলোভনে নারীকে ধর্ষণ ও সালিশ করে ৯০ হাজার টাকা জরিমানা ধার্য করার ঘটনা ঘটেছে। জানা যায়, উপজেলার মাহমুদপুর ইউনিয়নের শ্রীকৃষ্ণপুর গ্রামের এক নারীকে বিয়ের প্রলোভনে একই গ্রামের শহীদ মাঝি দীর্ঘদিন ধরে ধর্ষণ করে আসছিলেন। এতে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে তার গর্ভপাত ঘটানো হয়।

গত ১০ আগস্ট (সোমবার) ধর্ষণের ঘটনার মীমাংসা করতে সালিশ ডাকা হয়। সালিশে ধর্ষককে ৯০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। কিন্তু ওই নারী টাকা না নিয়ে বিয়ের মাধ্যমে স্ত্রীর স্বীকৃতি চান।

ঘটনার শিকার নারীকে বেআইনি সালিশের মাধ্যমে অপবাদ দিয়ে নানাভাবে হয়রানি ও নারীর মর্যদাহানি এবং জরিমানার ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করছে মহিলা পরিষদ। যারা এই সালিশের সাথে জড়িত তাদেরও বিচারের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছে। এছাড়া ঘটনার শিকার নারীর সুচিকিৎসাসহ তার ও তার পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের অনুরোধ জানাচ্ছে।

একইসাথে বেআইনি সালিশ বন্ধে হাইকোর্ট বিভাগের রায় বাস্তবায়ন বিষয়ে এ ধরনের ঘটনা প্রতিরোধে সরকার, প্রশাসনের বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষণ করছে। সেইসাথে ধর্ষণ, গণধর্ষণ, যৌন নিপীড়ন, পারিবারিক সহিংসতা এবং নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা প্রতিরোধে সকল সামাজিক শক্তিকে এগিয়ে আসার জন্য আহ্বান জানাচ্ছে।

জেইউ/বিএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]