‘১৯৭৫ সালের মতো আবার যেন কোনো ষড়যন্ত্র না হয়’

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:০১ পিএম, ১৫ আগস্ট ২০২০

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, যারা স্বাধীন বাংলাদেশে বিশ্বাস করেন, মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশকে বিশ্বাস করেন তারা সকলে সোচ্চার থাকবেন, আবার যেন কোনো ষড়যন্ত্র না হয়। যে ষড়যন্ত্রে বঙ্গবন্ধুর মতো আমাদের কাউকে হারাতে হয়, যে ষড়যন্ত্রে স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকার, আল বদর, আল শামস এবং প্রতিক্রিয়াশীলরা আবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে পারে। বঙ্গবন্ধুকে ১৯৭৫ সালে রক্ষা করতে না পারার ব্যর্থতা ও কলঙ্কের দায় আমাদের সকলের। বর্তমান প্রেক্ষাপটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমাদের রক্ষা করতে হবে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শনিবার (১৫ আগস্ট) পিরোজপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে বহু আগেই বাংলাদেশ উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হতো। অভাবনীয়, অকল্পনীয় ও বিস্ময়কর সব পরিকল্পনা তিনি সাড়ে তিন বছরের রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকাকালীন করেছিলেন। যখন যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ পুনর্গঠন ছিল তার মূল টার্গেট, তার ভেতরে তিনি সমস্ত আইন প্রণয়ন করে গেছেন।

শ ম রেজাউল করিম বলেন, শেখ হাসিনার সততা, নিষ্ঠা ও অসাম্প্রদায়িক মানসিকতা যখন দেখি, তখন মনে হয় তিনি বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি হিসেবে আমাদের মাঝে আছেন। তিনি চান একটা সুশাসনের সরকার, যে সরকার এদেশের মানুষের সমস্ত আশা-আকাঙ্ক্ষা পরিপূর্ণ করবে। দেশকে উন্নত করবে। তিনি বাংলাদেশকে অভাবনীয় উন্নয়নের জায়গায় নিয়ে এসেছেন। আমরা চাই বাংলাদেশ এগিয়ে চলুক অপ্রতিরোধ্য গতিতে, সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় শেখ হাসিনার নেতৃত্বে।

পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলার পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান, পিরোজপুর পৌরসভার মেয়র হাবিবুর রহমান মালেক, পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ হাকিম হাওলাদার।

এর আগে পিরোজপুর শহরের বঙ্গবন্ধু চত্বরে স্থাপিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করেন মন্ত্রী। পরে পিরোজপুর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে দোয়া মাহফিলে যোগদান করেন তিনি। পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত শোক দিবসের অপর এক আলোচনা অনুষ্ঠানেও প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন মন্ত্রী।

এমইউ/এইচএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]