সৌদিতে কিশোরী খুন : ঢাকায় রিক্রুটিং এজেন্সির মালিক আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:০৯ পিএম, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০
র‌্যাবের অভিযানে গ্রেফতার মেসার্স এম এইচ ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের মালিক মকবুল হোসাইন ও তার সহযোগী তারেক

চাকরির জন্য সৌদি আরবে গিয়ে নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়ে কিশোরী উম্মে কুলসুমের (১৪) মৃত্যুর ঘটনায় তাকে সেদেশে পাঠানো রিক্রুটিং এজেন্সির মালিক মকবুল হোসাইন ও তার সহযোগী তারেককে আটক করেছে র্যাব।

বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) দুপুর দেড়টায় রাজধানীর ফকিরাপুলে মেসার্স এম এইচ ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল নামে ওই রিক্রুটিং এজেন্সির কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে দুজনকে আটক করা হয়। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসুর নেতৃত্বে অভিযান শুরু হয়।

অভিযানের বিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জানান, সৌদি আরবে গৃহকর্তার নির্যাতনে কিশোরী উম্মে কুলসুম নিহত হওয়ার ঘটনায় তাকে সৌদিতে পাঠানো রিক্রুটিং এজেন্সির কার্যালয়ে অভিযান চালানো হচ্ছে। অভিযান শেষে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগে ৯ আগস্ট চাকরির আশায় সৌদি আরবে গিয়ে নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়ে সৌদি আরবের একটি হাসপাতালে মারা যান ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কিশোরী উম্মে কুলসুম (১৪)। ১১ সেপ্টেম্বর রাতে কুলসুমের মরদেহ দেশে আনা হয়।

jagonews24

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার নূরপুর গ্রামের শহিদুল ইসলামের মেয়ে উম্মে কুলসুমকে স্থানীয় দালাল রাজ্জাক মিয়ার মাধ্যমে ৩০ হাজার টাকা খরচ করে ১৭ মাস আগে এম এইচ ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের মাধ্যমে গৃহকর্মীর কাজে সৌদি আরব পাঠানো হয়।

সেখানে গৃহকর্মী হিসেবে যোগদানের পর থেকেই কুলসুমের ওপর শারীরিক ও যৌন নির্যাতন শুরু করে মালিকপক্ষ। নির্যাতনের কারণে কুলসুমকে ফিরিয়ে আনার জন্য রিক্রুটিং এজেন্সির সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করার পরও তাদের পক্ষ থেকে কোনো সাড়া পায়নি পরিবার।

এর মধ্যে চার মাস আগে সৌদি আরবে গৃহকর্তা ও তার ছেলে মিলে কুলসুমের দুই হাঁটু, কোমর ও পা ভেঙে দেয়। এর কিছুদিন পর একটি চোখ নষ্ট করে রাস্তায় ফেলে দেয়। সেখান থেকে তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়।

এআর/এইচএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]