সিভিএফ দূত হিসেবে কাজ শুরু করেছেন মোহাম্মদ নাশিদ

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৪:৩৮ পিএম, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

বাংলাদেশের সভাপতিত্বে বর্তমানে পরিচালিত ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামে (সিভিএফ) মালদ্বীপের সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বর্তমান স্পিকার মোহাম্মদ নাশিদ বিষয়ভিত্তিক অ্যাম্বাসেডর (থিমেটিক অ্যাম্বাসেডর) হিসেবে কাজ শুরু করেছেন। ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের সম্প্রতি অনুষ্ঠিত এক সভায় তিনি এ দায়িত্ব বুঝে নেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রাক্তন মুখ্যসচিব ও এসডিজি সমন্বয়ক এবং সিভিএফ সভাপতির বিশেষ দূত আবুল কালাম আজাদ, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়, সিভিএফ প্রেসিডেন্সি ও সচিবালয়ের কর্মকর্তা এবং গ্লোবাল সেন্টার অন অ্যাডাপ্টেশনের কর্মকর্তাদের সাথে এ সময় মতবিনিময় করেন মোহাম্মদ নাশিদ।

প্রেসিডেন্ট নাশিদের সিভিএফ অ্যাম্বাসেডর হিসেবে কাজ করার প্রারম্ভিক সভায় আবুল কালাম আজাদ তার ২০০৯ সালে সিভিএফ প্রতিষ্ঠার কথা স্মরণ করেন এবং মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতি থাকাকালে ফোরামটি শুরুর প্রেক্ষাপট তুলে ধরেন। এ সময় তিনি উল্লেখ করেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও সিভিএফের সভাপতি শেখ হাসিনা এই সংগঠনটির কার্যক্রমে বিষয়ভিত্তিক অ্যাম্বাসেডর হিসেবে প্রেসিডেন্ট নাশিদের সহযোগিতা কামনা করেন।

সভায় সিদ্ধান্ত হয়, নাশিদ বিশ্বের নেতৃবৃন্দ, জনগণ, বিভিন্ন দেশের সংসদ এবং অন্যান্য অংশীদারদের সাথে সিভিএফের জন্য কাজ করবেন। তিনি আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে বর্ধিত প্যারিস চুক্তির জাতীয় অনুদান বা এনডিসি সরবরাহের ওপর বিশেষভাবে গুরুত্বারোপ করবেন। প্রকৃতিভিত্তিক সমাধানের উন্নত প্রয়োগের মাধ্যমে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি প্রদান, ক্রমবর্ধমানভাবে কার্বন নির্গমন এবং স্থিতিশীলতা দূর করার লক্ষ্যে জলবায়ু সমৃদ্ধি পরিকল্পনা রচনা করতে মোহাম্মদ নাশিদ আগ্রহী সরকারের সাথে কাজ করবেন। এছাড়া অর্থনীতির কিছু অংশ কার্বনমুক্ত করা এবং জলবায়ু অভিযোজন ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে তিনি সিভিএফ দেশগুলোতে প্রযুক্তি হাব স্থাপনের প্রস্তাব রাখার বিষয়ে কাজ করবেন।

উল্লেখ্য, সিভিএফ বৈশ্বিক জলবায়ু জরুরি অবস্থার কারণে সবচেয়ে বেশি হুমকির সম্মুখীন ৪৮টি উন্নয়নশীল দেশের একটি আন্তর্জাতিক অংশীদারিত্ব, যেখানে বাংলাদেশ ২০২০-২২ সময়ের জন্য ফোরামের প্রেসিডেন্ট। অ্যাম্বাসেডরদের বুদ্ধি, প্রজ্ঞা, অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা ব্যবহার করে সিভিএফকে আরও কার্যকর এবং এর কার্যক্রম ত্বরান্বিত করে সিভিএফের লক্ষ্য অর্জন করার জন্য এ পর্যন্ত নাশিদসহ ৫ জন বিষয়ভিত্তিক অ্যাম্বাসেডর নিযুক্ত করা হয়েছে।

এমইউ/এমএসএইচ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]