নারী উদ্যোক্তাদের প্রাণের জায়গা ‘উই’

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৫৮ পিএম, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০

‘উইমেন অ্যান্ড ই-কমার্স ফোরাম (উই) এখন দেশের নারী উদ্যোক্তাদের প্রাণের জায়গা। আমরা দেশজুড়ে প্রান্তিক এলাকার মানুষের কাছে পৌঁছাতে পেরেছি। প্রতি মাসে একটি করে সেশন পরিচালনা করছি। আমাদের উদ্যোক্তাদের জন্য এমন সেশন পরিচালনা করাটা অনেক আনন্দের’।

কথাগুলো বলছিলেন উইয়ের প্রতিষ্ঠাতা নাছিমা আক্তার নিশা। তিনি বলেন, ‘দেশীয় নারী উদ্যোক্তাদের সবচেয়ে বড় প্লাটফর্ম উই। গ্রুপের সদস্য সংখ্যা ১০ লাখ ছুঁই ছুঁই’।

সংগঠনটি গত জুলাই থেকে প্রতি মাসে একটি করে সেশন পরিচালনা করছে আন্তর্জাতিক প্লাটফর্মগুলোর নানা গুণী উদ্যোক্তাদের অতিথি করে। উইয়ের উপদেষ্টা সৌম্য বসুর জনপ্রিয় ট্রেনিং মডেল এটি।

২০ সেপ্টেম্বর উইয়ের মাস্টার ক্লাসের উদ্বোধন করেন এলআইসিটি প্রজেক্ট ডিরেক্টর রেজাউল করিম। তিনি বলেন, ‘আইসিটি ডিভিশন নারী উদ্যোক্তাদের দক্ষতা উন্নয়নকে প্রাধান্য দেয়। উইয়ের কার্যক্রমকে আমি সাধুবাদ জানাই’।

বক্তব্য দেন এলআইসিটি প্রজেক্টের উপদেষ্টা সামী আহমেদ, উইয়ের উপদেষ্টা ও সার্চ ইংলিশের প্রতিষ্ঠাতা রাজিব আহমেদ, গ্লোবাল সিল্ক লিমিটেডের সিইও সৌম্য বসু, উইয়ের উপদেষ্টা জাহানুর কবির সাকিব।

ট্রেইনার হিসেবে জুমের মাধ্যমে যুক্ত হন ইও কাওয়ালী লিমিটেডের সিইও এবং কো-ফাউন্ডার জেমস থিকেট, ইউকের এসএমএস মাইক্রোসিস্টেম লিমিটেডের ডিরেক্টর শারদ কুমার।

সেশনটিতে তারা দু’জন পৃথিবীর উদ্যোক্তাদের ব্যবসা পরিবর্তনের সঙ্গে তাল মিলিয়ে নেয়াসহ বিভিন্ন প্রেক্ষাপট আলোচনা করেন। শারদ কুমার বলেন, ‘আমি সত্যিই গর্বিত এমন অদম্য গতিতে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে দেখে’।

৫০০ জনের মতো প্রশিক্ষণার্থীর এই সেশনের পর এটি বাংলায় উই গ্রুপে সবার জন্য উন্মুক্ত সেশন হয়। সেশন নেন থটের চেয়ারম্যান মাহবুবুল আলম।

উইয়ের আয়োজনে প্রতি মাসে একবার আইসিটি মন্ত্রণালয়ের সহায়তায় অনুষ্ঠিত হবে।

এমআরএম/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]