দুর্নীতিতে সমাজ ভেঙে পড়ার দ্বারপ্রান্তে : শাহদীন মালিক

সায়েম সাবু
সায়েম সাবু সায়েম সাবু , জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:৪৪ পিএম, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

দুর্নীতির কারণে সমাজ ভেঙে পড়ার দ্বারপ্রান্তে বলে মন্তব্য করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ও সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. শাহদীন মালিক।

তিনি বলেন, স্বাস্থ্যখাতের এমন দুর্নীতির খবর সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলের অজানা থাকার কথা নয়। আর দুর্নীতির ছবলে পচে গেছে সর্বত্রই। ব্যবস্থা নেবে কোথায়!

স্বাস্থ্যখাতসহ সম্প্রতি প্রকাশিত দুর্নীতির প্রসঙ্গ নিয়ে জাগো নিউজের সঙ্গে কথা বলেন শাহদীন মালিক।

তিনি বলেন, ‘সমাজের অধিকাংশ মানুষই অন্যায় সয়ে নিচ্ছে এবং সিরিয়াস কোনো ঘটনা মনে করছে না। আর এ কারণেই সাহেদ, সম্রাট, পাপিয়া বা একজন গাড়িচালক ভয়ঙ্কর দুর্নীতি করতে পারছে। অনেকেই করোনাকালে দুর্নীতি করেছেন, করছেন। কয়েকটি হাসপাতালের জালিয়াতির খবর তো মিডিয়ায় প্রকাশ পেল। হাসপাতালে খাবার বিল নিয়ে বড় দুর্নীতির খবর পেলাম। ওষুধ, মেডিকেল সরঞ্জাম অবৈধভাবে বিক্রি করছে। মহামারির এমন দিনে যখন মানুষের জীবন নিয়ে ব্যবসা হয়, জালিয়াতি হয়, তখন সমাজের সর্বোচ্চ অধঃপতন ঘটছে বলেই মনে করতে হয়। স্বাস্থ্যের ডিজির গাড়িচালকের শত কোটি টাকার দুর্নীতির খবর বের হয়েছে, তাতেও অবাক হইনি। দুর্নীতি করে অনেকেই কোটিপতি বনে গেছেন এবং সরকার তা ওয়াকিবহাল।’

তিনি বলেন, ‘মানুষ ক্রমশই দুর্নীতির ঘটনা মেনে নিচ্ছে। গা-সওয়া ভাব থেকেই দুর্নীতি বাড়ছে। কেউ প্রতিবাদ করছে না। যা ঘটছে, তার সবই স্বাভাবিক মনে করছে। এই চিত্র একটি সমাজের অধঃপতন নিশ্চিত করে। একসময় কেউ-ই রক্ষা পাবে না দুর্নীতির গ্রাস থেকে। তখন হয়তো আর উপায় থাকবে না।’

দুর্নীতির কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘দুটি কারণে সমাজের এই অবনতি। প্রথমত, ধর্মীয় অপব্যাখ্যার কারণে নীতিনৈতিকতা থেকে মানুষ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে। দ্বিতীয়ত, দেশের নেতৃত্বের মাঝে নীতিনৈতিকতার অভাব। আপনি যদি বিগত কয়েক বছরের নির্বাচন ব্যবস্থা দেখেন, তাহলে দেখবেন মিথ্যার বেসুতি সমাজে প্রতিষ্ঠা পেয়েছে। পুলিশ, প্রশাসন সবাই ভোট, নির্বাচনের অব্যবস্থাপনার সঙ্গে জড়িত। মানুষ ভোট জালিয়াতি মেনে নিয়েছে, দুর্নীতিও মেনে নিচ্ছে। ভেঙ্গে পড়া সমাজের খেসারত হিসেবে দুর্ভিক্ষও দেখা যেতে পারে। আবার অশান্তি চরম অবস্থা রূপ নিতে পারে, যা গোত্রে গোত্রে হানাহানিও তৈরি করবে।'

এএসএস/বিএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]