মোমেন-জয়শঙ্কর বৈঠক কাল : প্রাধান্য পাবে অভিন্ন নদীর পানি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৪৮ পিএম, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

বাংলাদেশ-ভারত যৌথ পরামর্শক কমিশনের (জেসিসি) বৈঠকে রোহিঙ্গা সংকট, অভিন্ন নদীর পানির হিস্যা, জ্বালানি, যোগাযোগ, দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য এবং সীমান্ত ইস্যু প্রাধান্য পাবে বলে জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট কূটনৈতিক সূত্রগুলো জানিয়েছে, মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন এবং ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্কর করোনা মহামারির প্রেক্ষিতে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠেয় ৬ষ্ঠ জেসিসির এ বৈঠকে নিজ নিজ পক্ষের নেতৃত্ব দেবেন।

নয়াদিল্লির কূটনীতিক সূত্রগুলো জানিয়েছে, দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা ছয়টি যৌথ নদী- মনু, মুহুরী, খোয়াই, গোমতী, ধরলা এবং দুধকুমারের পানি ভাগাভাগির চুক্তির খসড়া নিয়ে আলোচনা করতে এবং শিগগিরই জেআরসি বৈঠকের জন্য একটি দিকনির্দেশনা দিতে পারেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো আশা করে, মঙ্গলবারের বৈঠকে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে স্থগিত হওয়া যৌথ নদী কমিশন (জেআরসি) বৈঠকের নতুন তারিখ ঘোষণা হতে পারে।

জেআরসির সর্বশেষ সভা ২০১০ সালে নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত বছর ভারত সফরের সময় দুই দেশই জেআরসির টেকনিক্যাল কমিটিকে হালনাগাদ তথ্য ও উপাত্ত বিনিময় এবং এ বিষয়ে খসড়া কাঠামো তৈরির জন্য একমত হয়েছিলেন।

সূত্রগুলো জানায়, বৈঠকে বাংলাদেশ-ভারত দ্বিপাক্ষিক উন্নয়ন খাতগুলোর পর্যালোচনা ছাড়াও ‘মুজিববর্ষ’ চলাকালীন ঢাকা ও নয়াদিল্লির অভিন্ন কর্মসূচি নিয়ে আলোচনা করবে।

গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে নয়াদিল্লিতে কমিশনের পঞ্চম বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বাংলাদেশে ৬ষ্ঠ জেসিসির বৈঠকের আয়োজন করার কথা। পঞ্চম বৈঠকে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন এবং তৎকালীন ভারতীয় পরররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ তাদের নিজ নিজ পক্ষে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

গত বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত ভারত-বাংলাদেশ জেসিসির বৈঠকে দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে বিদ্যমান বহুমুখী সহযোগিতা আরও জোরদার করতে চারটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। সূত্র-বাসস

এএইচ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]