সড়ক রক্ষণাবেক্ষণে জবাবদিহি নিশ্চিত করার নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৪৩ পিএম, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

‘মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, সড়ক হবে সংস্কার’ শীর্ষক স্লোগানের বাস্তব প্রতিফলন ঘটানোর লক্ষ্য নিয়ে উদ্বোধন করা হলো ‘গ্রামীণ সড়ক রক্ষণাবেক্ষণ মাস অক্টোবর-২০২০’।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) মন্ত্রণালয়ের নিজ কক্ষ থেকে অনলাইন প্লাটফর্মে যুক্ত হয়ে এই মাসের উদ্বোধন করেন। এ সময় তিনি নির্মাণ সামগ্রী, আধুনিক প্রযুক্তি, জবাবদিহি ও সুপারভিশন নিশ্চিত করার নির্দেশ দেন।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী মো. আবদুর রশিদ খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে যোগ দেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী (রক্ষণাবেক্ষণ) সেখ মোহাম্মদ মহসিন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী এলজিইডির অধীন সকল কর্মকাণ্ড সঠিকভাবে করা হচ্ছে কি-না, তা তদারকি করার জন্য সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জবাবদিহি নিশ্চিত করার নির্দেশ দেন।

তাজুল ইসলাম বলেন, নির্মাণ সামগ্রী, আধুনিক প্রযুক্তি, জবাবদিহি এবং সুপারভিশন নিশ্চিত করা গেলে তার সুফল পাওয়া সম্ভব। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর, জেলা নির্বাহী প্রকৌশলী এবং প্রকল্প পরিচালক যদি সময়ে সময়ে কর্মকাণ্ড পরিদর্শন করেন, তাহলে জবাবদিহি বাড়বে।

কাজের মান নিয়ন্ত্রণ এবং ঠিকাদারদের কথা মাথায় রেখে নির্মাণ ব্যয় প্রাক্কলন করা উচিত জানিয়ে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী দক্ষ এবং পেশাদার ঠিকাদার নিয়োগ দেয়ার নির্দেশ দেন।

এ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, কাজের অভিজ্ঞতা না থাকলেও এখন অনেকেই লাইসেন্স করে। এতে করে একদিকে যেমন নিম্নমানের কাজ হয়, অন্যদিকে সেই ঠিকাদারও লোকসানের মুখে পড়ে।

তিনি জানান, রাস্তা, সেতু নির্মাণ এবং রক্ষণাবেক্ষণসহ যে কাজই হোক না কেন, তা অবশ্যই মানসম্মত ও টেকসই হতে হবে। গুণগত কাজ করতে গিয়ে কোনো ধরনের চাপের কাছে মাথা নত করা যাবে না।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, ভালো কাজের জন্য পুরস্কার এবং মন্দ কাজের জন্য তিরস্কার নিশ্চিত করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের দারিদ্র্য-ক্ষুধামুক্ত এবং উন্নত-সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ বিনির্মাণে সবাইকে এক হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান তাজুল ইসলাম।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, শহরের সকল সুযোগ-সুবিধা গ্রামগঞ্জে পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার ‘আমার গ্রাম, আমার শহর’র পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছে। এটি বাস্তবায়িত হলে নগর এবং গ্রামের বৈষম্য দূর হবে।

উল্লেখ্য, ‘মুজিববর্ষের অঙ্গীকার সড়ক হবে সংস্কার’ শীর্ষক স্লোগান বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সারাদেশে গ্রামীণ সড়কের নিয়মিত রক্ষণাবেক্ষণ কার্যক্রম জোরদার করার জন্য আগামী অক্টোবর এবং মার্চ (২০২১) রক্ষণাবেক্ষণ মাস হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। সারাদেশে এলজিইডির আওতায় বিভিন্ন শ্রেণীর মোট তিন লাখ ৫৩ হাজার ৩৫৩ কিলোমিটার গ্রামীণ সড়ক রয়েছে।

এমইউএইচ/এইচএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]