প্রাথমিকে প্যানেলভুক্ত নিয়োগের দাবিতে রাজপথে আন্দোলনকারীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৪৬ পিএম, ১১ অক্টোবর ২০২০

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০১৮ প্যানেলে (লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের পরবর্তীতে ধাপে ধাপে নিয়োগ) চান চাকরি প্রত্যাশীরা।

এ দাবিতে রোববার (১১ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন নিয়োগ প্রত্যাশীরা। প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত তারা আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

আন্দোলনকারীরা বলেন, গত ৬ বছরে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একটিমাত্র শিক্ষক নিয়োগ সম্পন্ন হয়েছে। এ পরীক্ষায় ২৪ লাখ প্রার্থী অংশ নেয়। এর মধ্যে ৫৫ হাজার লিখিত পরীক্ষায় পাস করলেও ১৮ হাজার প্রার্থীকে নিয়োগ দেয়া হয়।

তারা বলেন, দীর্ঘদিন থেকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকট থাকলেও প্যানেলভুক্ত প্রার্থীদের মধ্যে থেকে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে না। আগে এ পদ্ধতি অনুসরণ হলেও গত ৯ মাস থেকে যৌক্তিক দাবিতে আমরা আন্দোলন করছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত আমাদের নিয়োগ দেয়া হচ্ছে না। এ কারণে বাধ্য হয়ে আমরা লাগাতার কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা ঘরে ফিরব না।

Movement

আন্দোলনকারীরা জানান, ২০১০, ২০১২, ২০১৩ ও ২০১৪ সালে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগে প্যানেল গঠন করা হলেও ২০১৮ সালের নিয়োগ কার্যক্রমে প্যানেল গঠনের জন্য এখনও পর্যন্ত কর্তৃপক্ষ কার্যকরী কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। এছাড়া প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ কার্যক্রম পরিচালনায় দীর্ঘ সময়ক্ষেপণ করা হয়। শিক্ষক নিয়োগ দ্রুততার মধ্যে শেষ করাসহ সব ধরনের কোটা বাতিলের দাবি জানান তারা।

সংগঠনের সভাপতি আব্দুল কাদের বলেন, রিট জটিলতার কারণে ২০১৪ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে কোনো সার্কুলার হয়নি। এর মধ্যে অনেকের সরকারি চাকরির বয়স শেষ হয়ে গেছে। ফলে বিদ্যালয়ে শূন্য আসনের ভিত্তিতে এই ৩৭ হাজার ১৪৮ জনকে নিয়োগের সুপারিশ করতে হবে।

তিনি বলেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রাথমিকের সর্বশেষ নিয়োগে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের প্যানেল করে নিয়োগ দিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমরা আবেদন জানাই। প্রধানমন্ত্রী দেশের এসব যোগ্য প্রার্থীদের চাকরির সুযোগ দিয়ে যুব সমজকে বেকারত্ব থেকে মুক্তি দেবেন বলে আশা করেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, গত ৯ মাস থেকে আন্দোলন করে আসলেও প্যানেলভুক্তদের নিয়োগ দেয়া হচ্ছে না। এ কারণে দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে নিয়োগ প্রত্যাশীরা জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান নিয়ে লাগাতার কর্মসূচি পালন করছেন। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা না পাওয়া পর্যন্ত আমরা বাসায় ফিরব না। দাবি আদায়ে লাগাতার অনশনে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দেন তারা।

এমএইচএম/এএইচ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]