সড়ক ব্যবহারের জন্য বিজিএমইএর কাছে সার্ভিস চার্জ চাইল চসিক

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক চট্টগ্রাম
প্রকাশিত: ০৪:৩৮ পিএম, ২০ অক্টোবর ২০২০

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) সড়ক অবকাঠামো ব্যবহার করে চট্টগ্রাম বন্দরের মাধ্যমে ব্যবসা-বাণিজ্য পরিচালনা করা রফতানিকারক পোশাকশিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন বিজিএমইএর কাছ থেকে সার্ভিস চার্জ দাবি করেছেন চসিক প্রশাসক খোরশেদুল আলম সুজন।

সোমবার (১৯ অক্টোবর) দুপুরে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সম্মেলন কক্ষে বিজিএমইএ নেতাদের সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি এ বিষয়টি উত্থাপন করেন।

খোরশেদুল আলম সুজন বলেন, ‘রফতানিকারক পোশাকশিল্প প্রতিষ্ঠানগুলো জাতীয় অর্থনীতিতে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই করোনাকালীন সবচেয়ে বেশি প্রণোদনা দিয়েছেন। চট্টগ্রাম বন্দরকে কেন্দ্র করে জাতীয় সমৃদ্ধি একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলস্টোন।’

এ সময় তিনি বলেন, ‘পোশাকশিল্পের আমদানি রফতানিকারকরা চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সড়ক অবকাঠামো ব্যবহার করে বন্দরের মাধ্যমে তাদের নিত্য ব্যবসা-বাণিজ্য পরিচালনা করে যাচ্ছেন। এই ক্ষেত্রে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন তাদের কাছ থেকে ন্যূনতম একটি সার্ভিস চার্জ পেতে পারে। বিজিএমই কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন পর্যায়ে এতদিন ধরে সার্ভিস চার্জ দিয়ে আসলেও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন তা থেকে বঞ্চিত। এ সার্ভিস চার্জ দিয়ে নগরীর সড়ক অবকাঠামোগুলো সংস্কার বা উন্নয়ন সম্ভব।’

চসিক প্রশাসক বলেন, ‘চট্টগ্রাম নগরে বড় যে দুটি ইপিজেড এবং অনেক শিল্পপ্রতিষ্ঠান রয়েছে, এর সঙ্গে রয়েছে তাদের বিশাল সংখ্যক কর্মী বাহিনী। ব্যবসায়ের সুবিধার্থে এবং পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন নগরী গড়ে তুলতে এসব শিল্পপ্রতিষ্ঠান থেকে ন্যূনতম ট্যাক্স প্রাপ্য হলেও এক্ষেত্রে ট্যাক্সের আওতার বাইরে রয়েছে। আমি এ বিষয়টি আপনাদের বিবেচনার জন্য উপস্থাপন করলাম।’

খোরশেদুল আলম সুজন বলেন, ‘এ শহরটি অচিরেই একটি রিজিওনাল সেন্টারে পরিণত হবে। চলাচলের জন্য ভালোমানের রাস্তা ও অবকাঠামো প্রয়োজন। কিন্তু তা চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের একার পক্ষে সম্ভব নয়। এই ব্যয় নির্বাহে বিজিএমইএর অংশীদারত্ব চট্টগ্রাম নগরবাসীতো বটেই, তার সুফল ভোগ করবে সারাদেশের রফতানিকারক পোশাকশিল্প।’

প্রশাসকের উত্থাপিত প্রস্তাবনা ইতিবাচক হিসেবে অবহিত করে বিজিএমইর প্রথম সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আবদুস সালাম বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে সিঅ্যান্ডএফের সঙ্গে যুক্তি উত্থাপন করব এবং তাদের মাধ্যমে সার্ভিস চার্জ চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনকে দেয়ার পদক্ষেপ নেব।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিজিএমইএর একটি হাসপাতাল আছে, সেটি চসিক চাইলে নগরবাসীর স্বাস্থ্য সেবার জন্য ব্যবহার করতে পারবে।’

বৈঠকে চসিকে পরিচ্ছন্নকর্মীদের জন্য শীতকালীন পোশাক দেয়ার ঘোষণা দেন বিজিএমইএর নেতৃবৃন্দ।

এ সময় চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ কাজী মোজাম্মলে হক, প্রধান রাজস্ব র্কমর্কতা মুফিদুল আলম, একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল হাশেম, রাজস্ব কর্মকর্তা সাহিদা ফাতেমা ও বিজিএমইএর সহ-সভাপতি এ এম চৌধুরী সেলিম, পরিচালক মোহাম্মদ মুছা, অঞ্জন শেখর দাশ, খোন্দকার বেলায়েত হোসেন, মোহাম্মদ আতিক ও এনামুল আজিজ চৌধুরীসহ বিজিএমইএর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আবু আজাদ/এসআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]