সরকারি হাসপাতাল থেকে বেসরকারিতে রোগী বাগিয়ে নেয়া ১১ জনকে কারাদণ্ড

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:৪৩ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০২০

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে জাতীয় অর্থপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠান (নিটোর) তথা পঙ্গু হাসপাতাল থেকে রোগী বাগিয়ে বেসরকারি হাসপাতালে দেয়া চক্রের ১১ জনকে আটক করেছেন র‍্যাবের একটি ভ্রাম্যমাণ আদালত।

তাদের ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ৯ জন পুরুষ ও দুজন নারী।

তারা হলেন- জহির (৪২), সাগর বসাক (৪২), মানিক মিয়া (৩০), কাউসার (২২), শরীফ (২৪), মানিক (৩৮), রফিকুল ইসলাম সুমন (২৬), আব্দুস ছালাম (৬০), আলতাফ হোসেন (৫৩), মোসা. আজিরন নেসা (৩৫) ও ইয়াসমিন বিবি (৪৫)।

র‍্যাব-২ জানায়, সরকারি নির্দেশ অমান্য করে পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের প্রলোভন দেখিয়ে বেসরকারি হাসপাতালে কম টাকায় ভালো চিকিৎসা হবে বলে কমিশনের মাধ্যমে ভর্তি করিয়ে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেয় দালাল চক্রটি।

এছাড়া সরকারি হাসপাতালের সেবা কার্যক্রমে বাধা সৃষ্টি করে তারা। এ ঘটনায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‍্যাব-২ এর একটি চৌকস দল দুপুরে এই দালাল চক্রের ১১ সদস্যকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু জাগো নিউজকে বলেন, সারাদেশ থেকে সরকারি পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসে বিভিন্ন শ্রেণির মানুষ। এই দালাল চক্র তাদের কম টাকায় ভালো চিকিৎসা পাবেন বলে এবং এখানের ডাক্তার চেম্বারে বসে আছেন বলে মোহাম্মদপুরের নূরজাহান জেনারেল হাসপাতাল, মক্কা মদিনা জেনারেল হাসপাতাল, ঢাকা হেলথ কেয়ার হাসপাতাল, ক্রিসেন্ট হাসপাতাল, ন্যাশনাল হেলথ কেয়ার হাসপাতাল, সেবিকা জেনারেল হাসপাতাল, যমুনা জেনারেল হাসপাতাল ও টেককেয়ার হাসপাতালে রোগী নিয়ে যায়।

তিনি আরও বলেন, এর বিনিময়ে দালাল চক্র পায় মোটা অঙ্কের অর্থ। চলতি বছরও দালালের সর্দারসহ ছয়জনকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছিল। আজও ১১ জনকে ছয় মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

এফআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]