সাম্প্রদায়িকতার চোরাবালিতে হেঁটে ক্ষমতা রক্ষা করা যাবে না

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক চট্টগ্রাম
প্রকাশিত: ০৮:০৪ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০২০

 

হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত বর্তমান সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, ‘সাম্প্রদায়িকতার চোরাবালিতে হেঁটে ক্ষমতা রক্ষা করা যাবে না’।

তিনি বলেন, ‘সাম্প্রদায়িকতার চোরাবালিতে হেঁটে ক্ষমতা কিছুক্ষণের জন্য হয়তো রাখা যাবে, কিন্তু চূড়ান্তভাবে রক্ষা করা সম্ভব হবে না।’

বুধবার (২১ অক্টোবর) বিকেলে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্বরে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক ও সনাতন বিদ্যার্থী সংসদ এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কুশল বরণ চক্রবর্তীকে প্রাণনাশের হুমকির প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত বলেন, ‘এটিকে শুধুমাত্র একটি হুমকি মনে করলে হবে না। এটি একটি পরিকল্পনার অংশ। পরিকল্পনা মোতাবেক সাম্প্রদায়িক শক্তি অগ্রসর হতে চাইছে। এর বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের সতর্ক ভূমিকা পালন করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘দেশে যে ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট রয়েছে, এ ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টের ভিত্তিতে মহানবীকে কটূক্তি করেছে এরকম অপপ্রচার চালিয়ে গত কয়েক বছরে নানান সংখ্যালঘু এলাকায় হামলা চালানো হয়েছে। যারা চক্রান্তের শিকার হয়েছে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অতি সম্প্রতি দুই জনের প্রত্যেককে সাত বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। আর যারা চক্রান্ত করলো, ফেসবুক আইডি হ্যাক করলো তারা আজ ধরাছোঁয়ার বাইরে। আমরা এ সংক্রান্ত তথ্য প্রমাণ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে দিয়েছি।’

শারদাঞ্জলী ফোরামের কেন্দ্রীয় ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক কালীপদ ঘোষ বলেন, ‘মহান মুক্তিযুদ্ধে সনাতন ধর্মালম্বীরা যে ত্যাগ করেছে তা আর কোনো সম্প্রদায় করেনি। বাংলাদেশের একটি হিন্দু পরিবারও নেই যারা কোনো না কোনোভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি। অথচ আজ স্বাধীন দেশে আমাদেরই প্রাণনাশের হুমকি পেতে হচ্ছে। এর চেয়ে বড় দুঃখ আর নেই।’

সমাবেশে সনাতন বিদ্যার্থী সংসদের বিভিন্ন স্তরের নেতারা বক্তব্য রাখেন। তারা বলেন, আজ পঞ্চমী, সবাই দুর্গাপূজার প্রস্তুতি নিচ্ছে। কিন্তু এমন সময় আমাদের রাস্তায় নেমে আসতে হয়েছে। সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী ২০২৬ সালের মধ্যে বাংলাদেশ থেকে আমাদের নিশ্চিহ্ন করার ষড়যন্ত্র করছে। স্বাধীনতার এতো বছর পরেও এমন হুমকি সত্যি দুঃখজনক।

শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘আমরা সংখ্যালঘু নই, আমরা সবাই এ দেশের নাগরিক, আমরা বাঙালি। বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষককে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়েছে। তাই আশা করেছিলাম আজকের এই প্রতিবাদে সর্বস্তরের শিক্ষার্থীরা অংশ নেবেন।’

আবু আজাদ/এসএইচএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]