টেকনিক্যাল পদে নন-টেকনিক্যাল কর্মকর্তা : প্রকৃচির ক্ষোভ ও নিন্দা

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৬:৪৭ পিএম, ২৫ অক্টোবর ২০২০

প্রকৌশল, কৃষি ও স্বাস্থ্য খাতের বিভিন্ন টেকনিক্যাল পদে প্রশাসন ক্যাডারের নন-টেকনিক্যাল কর্মকর্তাদের পদায়নে তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়েছে প্রকৌশলী-কৃষিবিদ-চিকিৎসকদের (প্রকৃচি) সংগঠন ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (আইইবি), কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (কেআইবি) ও বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ)।

রোববার (২৫ অক্টোবর) বেলা ১১টায় বিএমএ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের ডা. এ কাশেম সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত এক মতবিনিময় সভায় এ ক্ষোভ ও নিন্দা জানানো হয়।

বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিনের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন আইইবি সভাপতি প্রকৌশলী মো. নূরুল হুদা, সাবেক সভাপতি প্রকৌশলী মো. আব্দুস সবুর, সহ-সভাপতি প্রকৌশলী এসএম মঞ্জুরুল হক মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মো. শাহাদাৎ হোসেন শিবলু পিইঞ্জ; কেআইবি সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) কৃষিবিদ ড. মো. শহীদুর রশীদ ভূইয়া, মহাসচিব কৃষিবিদ মো. খায়রুল আলম (প্রিন্স), দফতর সম্পাদক কৃষিবিদ এমএম মিজানুর রহমান, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) সভাপতি ডা. এম ইকবাল আর্সলান, মহাসচিব ডা. এমএ আজিজ, পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের মহাসচিব ডা. কামরুল হাসান খান, বিএমএ সহ-সভাপতি ডা. মো. জামাল উদ্দিন খলিফা ও বিএমএ কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদ সদস্য ডা. মো. জামাল উদ্দিন চৌধুরী। সভা পরিচালনা করেন বিএমএ মহাসচিব ডা. মো. ইহতেশামুল হক চৌধুরী।

সভায় নেতৃবৃন্দ একমত পোষণ করেন যে, প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ়চেতা ও যুগান্তকারী নির্দেশনায় এদেশের চিকিৎসক, প্রকৌশলী ও কৃষিবিদদের অক্লান্ত পরিশ্রমে করোনা মোকাবিলা জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসিত হয়েছে। তার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে মানুষের জীবন রক্ষা, খাদ্যনিরাপত্তা ও টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত হয়েছে।

নেতৃবৃন্দ বলেন, অত্যন্ত দুঃখ ও ক্ষোভের সঙ্গে লক্ষ করা গেছে, ইদানীং প্রকৌশল, কৃষি ও স্বাস্থ্যখাতের বিভিন্ন টেকনিক্যাল পদে প্রশাসন ক্যাডারের নন-টেকনিক্যাল কর্মকর্তাদের পদায়ন আওয়ামী লীগ সরকারের রাজনৈতিক মেনিফেস্টো, দেশের জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষা ও সরকারের উন্নয়ন রাজনীতির চিন্তা-চেতনাবিরোধী।

নেতারা জানান, টেকনিক্যাল পদে প্রশাসন ক্যাডারের পদায়ন দেশের উন্নয়ন পরিপন্থী এবং এর ফলে রাজনৈতিক সরকার ক্ষতিগ্রস্ত হবে। ‘আন্তঃক্যাডার দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয় এমন কোনো কিছু সরকার করবে না’ প্রধানমন্ত্রীর এমন অনুশাসন থাকা সত্ত্বেও প্রশাসনের বর্তমান কার্যকলাপ অব্যাহত থাকলে প্রকৃচি কোনো অবস্থায়ই তা মেনে নেবে না।

এদিকে আগামী দিনের করণীয় নির্ধারণে আইইবির সভাপতি প্রকৌশলী মো. নূরুল হুদাকে আহ্বায়ক এবং বিএমএ মহাসচিব ডা. মো. ইহতেশামুল হক চৌধুরীকে সদস্য সচিব করে প্রকৃচির নতুন স্টিয়ারিং কমিটি গঠন করা হয় এবং বাংলাদেশের প্রতিটি জেলায় প্রকৃচির শাখা কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।

এমইউ/বিএ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]