১ নভেম্বর থেকে সরকারি কর্মচারীদের তিন সেবার আবেদন অনলাইনে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:২১ পিএম, ২৫ অক্টোবর ২০২০

ঢাকা মহানগরীর সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কল্যাণ ভাতা, যৌথবীমা ও দাফন বা অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুদানের আবেদন আগামী ১ নভেম্বর থেকে অনলাইনে করতে পারবেন।

রোববার (২৫ অক্টোবর) এ বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অধীন সরকারি কর্মচারী কল্যাণ বোর্ড থেকে একটি পরিপত্র জারি করা হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, প্রাথমিক পর্যায়ে ঢাকা মহানগরের অধিক্ষেত্রে থাকা সকল অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারীরা অনাইনের মাধ্যমে কর্মচারী কল্যাণ বোর্ডে আবেদন করতে পারবেন। পরবর্তী সময়ে কল্যাণ ভাতা-যৌথবীমা-দাফন অনুদানের অনলাইন ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম সারাদেশে চালু করা হবে।

পরিপত্রে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ সরকারি কল্যাণ বোর্ডের তিনটি সেবার (কল্যাণভাতা, যৌথবীমা ও দাফন অনুদান) পৃথক ফরমগুলো একত্রিত করে একটি ফরমে একই কাগজপত্র দিয়ে আবেদন দাখিল ও একসঙ্গে অনুমোদন প্রদান সংক্রান্ত উদ্ভাবনী উদ্যোগটি ২৫তম বোর্ডে অনুমোদিত হয় এবং পরিপত্র জারির মাধ্যমে সমন্বিত ফরমটি কার্যকর করা হয়।

‘পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশ সচিবালয় নির্দেশমালা-২০১৪, এটুআই প্রোগ্রামের সেবাপদ্ধতি সহজীকরণ বাস্তবায়ন বিষয়ক নির্দেশনা, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের জারি করা প্রজ্ঞাপনে জনপ্রশাসনে কাজের গতিশীলতা ও উদ্ভাবনী দক্ষতা বৃদ্ধি এবং নাগরিক সেবা প্রদান প্রক্রিয়া দ্রুত ও সহজীকরণের পন্থা উদ্ভাবন সংক্রান্ত নির্দেশনা মোতাবেক বোর্ডের কল্যাণ-যৌথবীমা-দাফন অনুদানের ফরম-২ পুনরায় সহজীকরণ করা হয়। যা ৩০তম বোর্ড সভায় অনুমোদিত হয়।’

এতে আরও বলা হয়, তিনটি অনুদানের জন্য একটি ফরমে একই কাগজপত্র দিয়ে আবেদন গ্রহণ এবং একসঙ্গে অনুমোদন সংক্রান্ত উদ্ভাবনী উদ্যোগটি বাস্তবায়নের জন্য সফটওয়্যার প্রস্তুত করে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি) ডাটা সেন্টারে হোস্টিং করা হয়েছে, যার ইউআরএল- sss.bkkb.gov.bd

কল্যাণভাতা-যৌথবীমা ও দাফন অনুদানের আবেদনের ক্ষেত্রে ১ নভেম্বর থেকে অনলাইনে ইউআরএল sss.bkkb.gov.bd ব্যবহার করে আবেদনের সঙ্গে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের স্ক্যান কপি সংযুক্ত করে আবেদন দাখিল করতে হবে। অনলাইনের পাশাপাশি আবেদনের হার্ডকপি পাঠাতে হবে বলে পরিপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে।

আরএমএম/এসআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]