আলু কেজিতে ১৫ টাকা বেশি, ৭ পাইকারের জেল-জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:০৮ পিএম, ৩১ অক্টোবর ২০২০

সরকার নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি দামে আলু বিক্রি করায় রাজধানীর মোহাম্মদপুর কৃষি বাজারের সাত পাইকার-আড়তদারকে জেল-জরিমানা করেছে র‌্যাব পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত।

কৃষি বিপণন অধিদফতরের সহযোগিতায় র‌্যাব-৩ এর একটি দল শনিবার দুপুরে অভিযান শুরু করে। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু।

অভিযান শেষে তিনি জাগো নিউজকে বলেন, সরকার হিমাগারে কেজিপ্রতি আলুর দাম ২৭ টাকা, পাইকারিতে ৩০ এবং খুচরা সর্বোচ্চ ৩৫ টাকা নির্ধারণ করেছে। এরপরও অভিযোগ আসে পাইকার-আড়তদাররা নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি দামে আলু বিক্রি করছেন।

এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেটের পাইকারি বাজারে অভিযান পরিচালনা করা হয়। সেখানকার পাইকার আড়তে ৪০ থেকে ৪৫ টাকা কেজিতে বিক্রি করা হচ্ছে আলু। অর্থাৎ সরকারের নির্ধারিত দামের চেয়ে ১০ থেকে ১৫ টাকা বেশি, যা খুচরা বাজারে ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে।

jagonews24

এ অপরাধে কৃষি মার্কেটের মেসার্স তানহা এন্টারপ্রাইজের মালিক শাহাবুদ্দিনকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের জেল, মায়ের দোয়া বাণিজ্যালয়ের মালিক মমিন খানকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

একই কারণে মুন্সিগঞ্জ বাণিজ্যালয়ের মালিক মোহাম্মদ লিটন শেখকে এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের কারাদণ্ড, মেসার্স আল্লাহর দান ভাণ্ডারের এম এ হোসেনকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ড, মেসার্স মানিক এন্টারপ্রাইজের মালিক ফারুক হোসেনকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ড, নিউ বিক্রমপুর বাণিজ্যালয়ের মো. হোসেন বাবুলকে এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের কারাদণ্ড এবং মেসার্স নিউ শাহআলমের মালিক শাহ আলমকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ড দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

জেইউ/বিএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]