সিপিপিকে স্বাধীনতা পদকে মনোনয়নের প্রস্তাব

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:০৬ পিএম, ২৫ নভেম্বর ২০২০

ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচিকে (সিপিপি) ২০২১ সালে স্বাধীনতা পুরস্কারের মনোনয়নের জন্য প্রস্তাব করেছে সংসদীয় কমিটি। ঘূর্ণিঝড়ে মানুষের মৃত্যু কমিয়ে আনায় অবদানের জন্য এ প্রস্তাব করা হয়।

বুধবার (২৫ নভেম্বর) সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ বিষয়ে আলোচনা হয়। কমিটির সভাপতি এ বি তাজুল ইসলামের বৈঠকে কমিটির সদস্য দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রী মো. এনামুর রহমান ও মো. আফতাব উদ্দিন সরকার অংশ নেন।

প্রসঙ্গত, ১৯৭২ সাল থেকে সেবা কার্যক্রম চালিয়ে আসছে সিপিপি। তাদের অবদানে ঘূর্ণিঝড়ে মানুষের মৃত্যু ১০ লাখ থেকে ‘সিঙ্গেল ডিজিটে’ আনা সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

এই অবদানের জন্য প্রতিষ্ঠানটিকে ২০২১ সালের স্বাধীনতা পুরস্কারে মনোনয়নের জন্য প্রস্তাব করে কমিটি।

সিপিপি বাংলাদেশ সরকার এবং বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির একটি যৌথ কর্মসূচি। ১৯৭০ সালের নভেম্বর মাসের প্রলয়ংকরী ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসের পর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অনুরোধে তৎকালীন লিগ অব রেডক্রস বর্তমানে ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব রেডক্রস অ্যান্ড রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটিজ বাংলাদেশের উপকূলীয় জনসাধারণের জান-মাল রক্ষার্থে ১৯৭২ সালে সিপিপি প্রতিষ্ঠা করে। এক বছর যেতে না যেতেই লিগ অব রেডক্রস অ্যান্ড রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটিজ ১৯৭৩ সালের ১ লা জুলাই থেকে মাঠ পর্যায়ে কর্মসূচি প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেয়। উপকূলীয় জনসাধারণ এবং কর্মসূচির গুরুত্ব বিবেচনা করে বাংলাদেশ সরকার কর্মসূচিটি চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কর্মসূচিটির অনুমোদন দেন। তখন থেকে এটি বাংলাদেশ সরকার ও বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির একটি যৌথ কর্মসূচি হিসেবে পরিচালিত হচ্ছে।

এদিকে, সংসদীয় কমিটির বৈঠকে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সমন্বয় করে বন্যাপ্রবণ এবং নদীভাঙন এলাকার কাজ করার সুপারিশ করে কমিটি এবং পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে এ বিষয়ক চিঠি পাঠাতে বলা হয়।

বৈঠকে সামাজিক দুর্যোগ অর্থাৎ মাদকাসক্ত, নেশাগ্রস্ত, মাদক ব্যবসায়ী, সামাজিক অবক্ষয়, ইভটিজিং ইত্যাদি মোকাবেলা লক্ষ্যে নেয়া কর্মসূচিতে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়কে অন্তর্ভুক্ত করার সুপারিশ করা হয়।

এইচএস/এসএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]