২৭ ডিসেম্বরের মধ্যে সব বিদ্যালয়ে বই পৌঁছে দিতে সুপারিশ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৩৯ পিএম, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০

আগামী ২৭ ডিসেম্বরের মধ্যে সকল বিদ্যালয়ে শতভাগ বই পৌঁছে দিতে সুপারিশ করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির ১০ম বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি মুস্তাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, ‘করোনা মহামারির কারণে সবকিছু থেমে ছিল। কিন্তু আমরা খোঁজ নিয়ে জেনেছি, সরকারের দেয়া বিনামূল্যের বই ছাপানো কাজ সঠিক সময়ে শেষ হচ্ছে। তাই ২৭ ডিসেম্বরের মধ্যে সব বিদ্যালয়ে বই পাঠানোর সুপারিশ করেছে কমিটি।’

বৈঠকে ২০২১ শিক্ষাবর্ষে পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণ ও বাস্তবায়ন অগ্রগতির বিস্তারিত তথ্যও উপস্থাপন করা হয়।

বৈঠকের শুরুতে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যসহ অন্যান্য যারা শহীদ হয়েছেন, জাতীয় চার নেতাসহ ২১ আগস্টে শাহাদাৎ বরণকারী এবং সকল শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করা হয়।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির নতুন সদস্য হওয়ায় নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য কাজী মনিরুল ইসলামকে বৈঠকে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

ইতোপূর্বে গঠিত ২নং সাব-কমিটির রিপোর্ট মূল কমিটিতে উপস্থাপন করা হয়। কমিটির পরবর্তী বৈঠকে উপস্থাপিত রিপোর্ট নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।

এছাড়া বৈঠকে নবম বৈঠকের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন অগ্রগতি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক-কর্মচারীদের কোভিড-১৯ এর টিকা দেয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেয়া যায় কি না- সে বিষয়ে সার-সংক্ষেপ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠাতে সুপারিশ করা হয়।

কমিটি প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন স্বতন্ত্র শিক্ষা প্রকৌশল সেল গঠন করারও সুপারিশ করে।

কমিটির সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত বৈঠকে কমিটির সদস্য এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন, বেগম মেহের আফরোজ, মো. নজরুল ইসলাম বাবু, শিরীন আখতার, ফেরদৌসী ইসলাম, মো. মোশারফ হোসেন এবং কাজী মনিরুল ইসলাম অংশগ্রহণ করেন।

বৈঠকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এইচএস/এফআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]