চট্টগ্রামে চার দিনে ৪ খুন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:০২ পিএম, ১৫ জানুয়ারি ২০২১
নিহত চারজনের মাঝে তিনজন। উপরে বাম থেকে বাবুল সর্দার ও আতাউল হাকিম, নিচে আশিকুর রহমান রোহিত

মাঘের এই শীতেও নগর থেকে গ্রামে উত্তাপ ছড়াচ্ছে সিটি করপোরেশন ও পৌর নির্বাচন। সেই উত্তাপের মাঝে গত চারদিনে পৃথক চারটি ঘটনায় চট্টগ্রামে খুন হয়েছেন চার ব্যক্তি।

সর্বশেষ আজ শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) সকালে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন ছাত্রলীগ কর্মী আশিকুর রহমান রোহিত (২০)। তিনি ৮ জানুয়ারি চট্টগ্রাম নগরের দেওয়ানবাজার এলাকায় নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরীর জনসংযোগে অংশ নিয়ে ফেরার পথে ছুরিকাঘাতের শিকার হন।

নিহত রোহিত ওমরগনি এমইএস কলেজের এইচএসসি প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন।

রোহিত সক্রিয় ছাত্রলীগ কর্মী ছিলেন। ৮ জানুয়ারি দেওয়ানবাজার এলাকায় নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরীর গণসংযোগে অংশ নিয়েছিল। সেখান থেকে ফেরার পথে এ ছুরিকাঘাতের ঘটনা ঘটেছে। চান মিয়া মুন্সী লেনের মা মনি ক্লাবের কার্যক্রম নিয়ে দুটি পক্ষের বিরোধের জেরে রোহিতকে খুন করা হয়েছে বলে দাবি তার পরিবারের।

বুধবার (১৩ জানুয়ারি) লোহাগাড়া উপজেলার বড়হাতিয়া ইউনিয়নে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুর্বৃত্তের গুলি ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মো. সাইফুল (৩০) নামে এক যুবক খুন হয়েছেন।

নিহত সাইফুল ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের কুমিরাঘোনা হারিমুন পাড়ার মৃত আজিজুর রহমানের ছেলে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ঘটনার দিন দুপুরে কুমিরাঘোনা কালিনগর এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুর্বৃত্তরা সাইফুলকে গুলি ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে মারাত্মক জখম করে। এ সময় হামলাকারীরা মুখোশ পরা ছিল। আহত অবস্থায় সাইফুলকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা সদরের এক বেসরকারি হাসপাতালে এবং পরে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে আশংকাজনক অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

লোহাগাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকের হোসাইন মাহমুদ জানান, দীর্ঘদিন ধরে কুমিরাঘোনা এলাকায় পাহাড়ি জায়গা দখল-বেদখল ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে কয়েকটি গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ চলে আসছিল। এর আগে দখল-বেদখল এবং আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আনোয়ার, এমরান ও মোজাম্মেল হক নামে তিন ব্যক্তি খুন হয়েছে।

বুধবার (১৩ জানুয়ারি) রাতে মিরসরাইয়ে পোলট্রি শিল্প প্রতিষ্ঠান সিপি বাংলাদেশের শ্রমিকদের দুই পক্ষের সংঘর্ষে আতাউল হাকিম (৩৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হন। উপজেলার জোরারগঞ্জ থানার দুর্গাপুর ইউনিয়নের ঠাকুরদীঘি এলাকার এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আতাউল হাকিম বগুড়া জেলার চিকাসি মোহনপুর গ্রামের মৃত জহুরুল ইসলামের ছেলে। তিনি ওই হ্যাচারির ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

এর আগে মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) রাতে চট্টগ্রাম নগরের ২৮ নম্বর পাঠানটুলি ওয়ার্ডের মগপুকুর পাড় এলাকায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাহাদুর এবং বিদ্রোহী প্রার্থী আবদুল কাদেরের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে আজগর আলী বাবুল (৫৫) নামে একজন মারা যান।

নিহতের স্বজনদের দাবি, সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নিজ এলাকায় জনপ্রিয় বাবুল কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল কাদেরের পক্ষত্যাগ করে নজরুল ইসলাম বাহাদুরের সঙ্গে যোগ দেয়ায় তাকে পরিকল্পিত ভাবে খুন করা হয়েছে।

ঘটনার পর কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল কাদেরসহ ২৬ জনকে আটক করে। ওই রাতেই ১৩ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাতনামা আরও ৩০-৪০ জনকে আসামি করে ডবলমুরিং থানায় মামলা করেন নিহত আজগর আলীর ছেলে সেজান মোহাম্মদ সেতু। বুধবার আদালত কাদেরসহ ১১ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আওয়ামী লীগ নেতাদের নানান নির্দেশনার পরও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে বাগে রাখা যায়নি দলের বিদ্রোহী প্রার্থীদের। নির্বাচনে বিএনপিসহ অন্যান্য প্রার্থীর বিরুদ্ধে লড়ার আগে নিজ দলের বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধেই মাঠে নামতে হয়েছে আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের। এ নিয়ে সংঘাতের আশঙ্কা করা হচ্ছিল শুরু থেকেই।

সম্প্রতি পুলিশের অভ্যন্তরীণ একটি প্রতিবেদনেও ক্ষমতাসীন দলের মধ্যে কোন্দল এবং দল সমর্থিত ও বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থীদের মুখোমুখি অবস্থান নিয়ে সংঘাতের আশঙ্কার কথা বলা হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এবার চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে দলীয় কাউন্সিলর প্রার্থীদের অধিকাংশই শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী। আওয়ামী লীগের আরেক শীর্ষ নেতা আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারীরা তুলনামূলকভাবে কম মনোনয়ন পেয়েছেন। ২০১৫ সালে জয়ী হওয়া ১৩ জন কাউন্সিলর এবার দলের সমর্থন পাননি। এদের মধ্যে ১৩ নম্বর পাহাড়তলী ওয়ার্ডের মোহাম্মদ হোসেন হীরণ ছাড়া বাকি ১২ জনই নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন।

এদিকে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঠেকাতে নিরপেক্ষ ভূমিকা পালনের জন্য মাঠপর্যায়ে দায়িত্বরত পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দিয়েছেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার। বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) সিএমপির মাসিক অপরাধ সভায় এই নির্দেশনা দিয়েছেন কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর।

আজাদ/এমএইচআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]