খাস জমি থাকলেই পার্ক ও খেলার মাঠ করা হবে : মেয়র আতিক

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:১৪ পিএম, ২৩ জানুয়ারি ২০২১

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরশনের (ডিএনসিসি) যেসব ওয়ার্ডে খাস জমি রয়েছে সেখানেই পার্ক এবং খেলার মাঠ নির্মাণ করা হবে বলে জানিয়েছেন মেয়র আতিকুল ইসলাম।

শনিবার (২৩ ডিসেম্বর) সকাল ১০টায় ঢাকার মোহাম্মদপুরে ইকবাল রোডে উদয়াচল পার্কের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি।

আতিকুল ইসলাম বলেন, ডিএনসিসি এলাকায় ২৪টি মাঠ এবং পার্কের উন্নয়ন করা হচ্ছে। এর মধ্যে ১০টি মাঠ আন্তর্জাতিক মানের তৈরি করা হচ্ছে। এসব মাঠে বৃষ্টির পানি জমবে না। মাঠের ভেতর ব্যায়ামাগারসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা থাকবে।

তিনি বলেন, এই ১০টি মাঠ আধুনিকায়ন করার পর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এসব মাঠে রক্ষণাবেক্ষণ করবেন তারা। তবে সংশ্লিষ্ট এলাকার পথশিশু ও মহল্লায় লোকজন যাতে খেলতে পারে তা নিশ্চিত করতে হবে।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, মোহাম্মদপুরে মোট আটটি পার্ক করা হচ্ছে। অন্যান্য ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তাদের এলাকায় পার্ক এবং মাঠ করার দাবি জানিয়েছেন। তাদের বলা হয়েছে— যেখানে খাস জমি আছে সেগুলোর তালিকা সিটি করপোরেশনকে দেয়ার জন্য। এই তালিকা পেলে যথাযথ প্রক্রিয়ায় মাধ্যমে মাঠ এবং পার্ক করে দেয়া হবে। খেলাধুলার মাধ্যমে শিশু-কিশোরদের মাঝে সামাজিক ঐতিহ্য এবং বন্ধন ফিরিয়ে আনা হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভারতীয় হাইকমিশনার শ্রী বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী বলেন, একটি আদর্শ নগরের বৈশিষ্ট্য হচ্ছে সেখানে নাগরিকের জন্য পার্ক মাঠসহ পক্ষ থেকে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা থাকবে। ডিএনসিসি তা নিশ্চিত করতে পেরেছে।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, বর্তমান প্রজন্ম ঘরমুখী হয়ে পড়েছে। দিনভর ঘরে কম্পিউটার-মোবাইল নিয়ে পড়ে থাকে। প্রতিবেশীদের সঙ্গে তাদের সামাজিক বন্ধন নেই। কেউ কাউকে চিনে না, জানে না। এই ঘরমুখো পরিবেশ থেকে তরুণ প্রজন্মকে বেরিয়ে আসতে হবে। খেলাধুলার মাধ্যমে সুস্থ জীবন যাপন করতে হবে।

অনুষ্ঠানে ঢাকা-১৩ আসনের সংসদ সদস্য সাদেক খান, স্থপতি ইকবাল হাবিবসহ ডিএনসিসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর উদয়াচল পার্কে প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচ উদ্বোধন করেন ডিএনসিসি মেয়র ও ভারতীয় হাইকমিশনার।

এমএমএ/এএএইচ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]