প্রকাশনা খাতকে শিল্প ঘোষণার দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:২৭ পিএম, ২৩ জানুয়ারি ২০২১

প্রকাশনা খাতকে শিল্প হিসেবে ঘোষণার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি। এছাড়া প্রকাশনা ব্যবসাকে কোনো ধরনের আইন দ্বারা নিয়ন্ত্রণ না করা এবং বই বিক্রয়ের বিষয়ে অভিন্ন নীতিমালা চান তারা।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে সমিতির বার্ষিক সাধারণ সভায় এসব দাবি করেন নেতারা। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। সভার উদ্বোধন করেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, প্রকাশকেরা হাজার হাজার বছর ধরে জ্ঞান বিতরণ করে যাচ্ছেন। মানব সভ্যতার উন্নয়নে মহৎ পেশা এটি। অনেকে জীবনের ঝুঁকি নিয়েও বই প্রকাশ করে যাচ্ছে। পুস্তক বিক্রেতারা ব্যবসায়ী হলেও তাদের কাজটা মহৎ। তবে এই পেশাগুলোতে রাতারাতি ধনী হওয়ার সুযোগ নেই। ধৈর্য ধরে ধীরে ধীরে এগুতে হবে।

ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, দেশে প্রিন্টের মান বেড়েছে। কারণ বইয়ের প্রচ্ছদ, বার্ষিক প্রকাশনা এগুলো অনেক উন্নত হয়েছে। তাই দেশের প্রিন্টিং শিল্প অনেকটা আন্তর্জাতিক মানের হয়েছে। এর ভূমিকায় প্রকাশকরা রয়েছেন। এটি বিকশিত করেছেন আপনারা।

আইসিটির যুগে চ্যালেঞ্জ থাকলেও মোকাবিলা করতে হবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, আমি শুধু এতটুকুই বলতে চাই আপনাদের সামনে অনেক চ্যালেঞ্জ রয়েছে। এগুলো আপনারা কেউ বলেন না। কারণ, এই আইসিটির যুগে প্রকাশনা শিল্পের বিরাট চ্যালেঞ্জ রয়েছে। তবুও আমি বিশ্বাস করি, বই পড়ার যে আনন্দ আর কম্পিউটারে পড়ার সমান আনন্দ কখনই এক হবে না। তাই আমার দঢ় বিশ্বাস প্রকাশনা শিল্প ভালোভাবে বেঁচে থাকবে। তবে এটা মোকাবিলা করার জন্য প্রযুক্তিগত দিক থেকে উন্নত হওয়ার কিংবা কিভাবে টিকে থাকা যায় সে বিষয়ে ভাবতে হবে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, পোশাকের পাশাপাশি পুস্তকও বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের অংশীদার হতে পারে। এছাড়া বইয়ের দোকান যেন সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা হয় সে বিষয়েও অনুরোধ করেন তিনি।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী বলেন, বইয়ে নির্ভুল প্রিন্টের মাধ্যমে তথ্য উপস্থাপন করার ক্ষেত্রে আরও অবদান রাখবেন। এ সময় দেশাত্ববোধে উদ্বুদ্ধ হতেও বলেন তিনি।

বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি সভাপতি আরিফ হোসেন ছোটনের সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র সহ-সভাপতি কায়সার-ই- আলম প্রধান, সহ-সভাপতি শ্যামল পাল, সহ-সভাপতি মির্জা আলী আশরাফ, রাজধানী শাখার সভাপতি মাজহারুল ইসলাম, সাবেক সভাপতি আলমগীর শিকদার লোটন, উপদেষ্টা ওসমান গণি, উপদেষ্টা বাহাউদ্দিন ভূঁইয়া প্রমুখ।

এমএইচএম/এমআরআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]