‘প্রাথমিকে ঝরে পড়ার হার প্রায় শূন্যের কোটায় নেমে এসেছে’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৫৩ পিএম, ২৩ জানুয়ারি ২০২১

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ঝরে পড়ার হার প্রায় শূন্যের কোটায় নেমে এসেছে বলে জানিয়েছেন সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) রাতে রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ের বলরুমে আরটিভি আয়োজিত ‘আরটিভি এসএমসি মনিমিক্স প্রেরণা পদক ২০২০’ সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এ কথা জানান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘প্রাথমিক শিক্ষা অবৈতনিকীকরণ, উপবৃত্তি প্রদান ও বছরের প্রথম দিনে সব শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যে বই বিতরণ করার ফলে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এনরোলমেন্ট বা অন্তর্ভুক্তি প্রায় শতভাগে উন্নীত হয়েছে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১ কোটি ৪০ লাখ শিক্ষার্থীদের হাতে যথাসময়ে উপবৃত্তির টাকা পৌঁছে দেয়ায় শিক্ষার্থীদের ঝরে পড়ার হার প্রায় শূন্যের কোটায় নেমে এসেছে।’

তিনি বলেন, এমনকি কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতেও ডিজিটাল মাধ্যমে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে উপবৃত্তির টাকা যথাসময়ে শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের কাছে পৌঁছে দেয়া হয়েছে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছেলেদের চেয়ে মেয়েদের এনরোলমেন্ট হার বেশি। মেয়েদের ক্ষেত্রে শতকরা ১০০ ভাগ আর ছেলেদের ক্ষেত্রে ৯৯.৭ ভাগ। আর এসব সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর দক্ষ, বলিষ্ঠ, দূরদর্শী ও সময়োপযোগী নেতৃত্বের কারণে।

jagonews24

এবার পাঁচজন ব্যক্তি ও একটি প্রতিষ্ঠানকে ‘আরটিভি এসএমসি মনিমিক্স প্রেরণা পদক- ২০২০’ দেয়া হয়েছে। শিক্ষা বিস্তারে এক টাকার মাস্টার বা শিক্ষক খ্যাত ‘লুৎফর রহমান’, শিশুদের নোবেল খ্যাত আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কারপ্রাপ্ত দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র ‘সাদাত রহমান’, বিরসা মুন্ডা প্রভাতী স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা ‘আশিকুজ্জামান আশিক’, নড়াইলে অ্যাথলেট তৈরির কারিগর ‘দিলীপ চক্রবর্তী’, অটিজম বৈশিষ্ট্যসম্পন্ন ব্যক্তিদের কল্যাণ ও সুরক্ষায় নিবেদিত প্রাণ ‘সৈয়দা মুনিরা ইসলাম’ এবং ‘বুলবুল ললিতকলা একাডেমি’ (বাফা) পদক পেয়েছেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান।

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন আরটিভির ভাইস চেয়ারম্যান মো. জসিম উদ্দিন ও সোশ্যাল মার্কেটিং কোম্পানির (এসএমসি) চিফ অব প্রোগ্রাম (অপারেশন) তসলিম উদ্দিন খান।

ভিডিও বার্তার মাধ্যমে অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তৃতা করেন এসএমসির বোর্ড অব ডিরেক্টরসের চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান চৌধুরী, ইউএসএইড বাংলাদেশের সিনিয়র হেলথ অ্যাডভাইজর ড. আলিয়া এল সোহানদেস এবং এসএমসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ আলী রেজা খান।

আরএমএম/এআরএ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]