এখন একটা লোকও ভুয়া ভোট দিতে পারে না : সিইসি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৫০ পিএম, ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১

নির্বাচন ব্যবস্থা ডিজিটাল হওয়ায় এখন কেউই ভুয়া ভোট দিতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা।

বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে সাংবাদিক সংগঠন রিপোর্টার্স ফোরাম ফর ইলেকশন অ্যান্ড ডেমোক্রেসি (আরএফইডি) আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সিইসি বলেন, ‘ডিজিটাল যুগের ব্যবস্থাপনা আমাদেরকে সুষ্ঠু নির্বাচনের পক্ষে অনেক দূরে নিয়ে গেছে। এখন আর একটা লোকও ভুয়া ভোট দিতে পারে না। এবার কয়েকজন ভুয়া ভোট দেয়ার চেষ্টা করেছিল, তাদের সাথে সাথে ধরে ফেলা হয়েছে। কারণ, সিডি চেক করলে সাথে সাথে তার ছবিসহ সব দেখা যায়। আমরা যখন ছোট ছিলাম তখন সিডি ছিল না, ফলে ভুয়া ভোট হয়ে যেত। তাই সিডির কাজের জন্য মার্চে নির্বাচন করা সম্ভব হবে না। এপ্রিলে একটা নির্বাচন করব তারপর রমজানের ঈদের পর বাকি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনগুলো শুরু হবে।’

বিগত নির্বাচনগুলোতে রক্তপাত, সহিংসতা কেন ঠিক করা গেল না এবং বিষয়টি আগামীতে কীভাবে সামাল দেবেন, এমন প্রশ্নের জবাবে নূরুল হুদা বলেন, ‘এত রক্তপাত হয়েছে, এত সংঘাত হয়েছে তা না। যেগুলো হয়েছে আমাদের কাম্য নয়। এগুলো তো প্রতিদ্বন্দ্বীদের মধ্যে। আমাদের পুলিশ থাকে, কিন্তু একটা ঘটনা ঘটে গেলে কিছু করার থাকে না।’

‘প্রচুর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য থাকে, ম্যাজিস্ট্রেট থাকে। তারপরও এগুলো অপ্রত্যাশিত ঘটনা ঘটে যায়। প্রার্থী ও প্রার্থীদের সমর্থকদের সহনশীল থাকতে হবে, আর আমাদের প্রচেষ্টা তো আছেই। তবে এটাকে ঢালাওভাবে বলবেন না, ব্যাপকভাবে হয়েছে তা নয়। আমাদের প্রস্তুতিতে কোন ঘাটতি থাকলে বলবেন।’

আইনশৃঙ্খলার বাহিনীর জন্য কোনো বার্তা আছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে কেএম নূরুল হুদা বলেন, ‘আমরা তাদের অত্যন্ত সতর্ক অবস্থায় রাখি। প্রত্যেকটি জায়গায় র‌্যাব, বিজিবি, আনসার আছে। প্রত্যেকটা কেন্দ্রে ১২ থেকে ১৮ জন আর্মড পুলিশ এবং আনসার নিয়োজিত থাকবে। তাদের সাথে নির্বাচন কমিশনাররা কথা বলেছেন। তারা আরও সুষ্ঠুভাবে তদারকি করবে। আগামী ১৪ তারিখ যে নির্বাচন আছে সেগুলো তারা মনিটর করেন। কোনো জায়গায় খারাপ খবর পেলে কমিশনাররা কথা বলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেন।’

এ সময় নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, রফিকুল ইসলাম, কবিতা খানম, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী, নির্বাচন কমিশন সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আইএইচআর/এসএস/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]