মাদকমুক্ত করতে পরীক্ষামূলক প্রকল্প নেয়া হচ্ছে ২ অঞ্চলে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৫৫ পিএম, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১

মাদকমুক্ত করতে চট্টগ্রাম ও দিনাজপুর অঞ্চলে পরীক্ষামূলক প্রকল্প নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে কমিটির পঞ্চম সভা শেষে মোজাম্মেল হক এ কথা জানান।

আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘মাদকদ্রব্য নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন। যাতে আরও নিয়ন্ত্রণে আনা যায় সেই বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। সভা থেকে আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে পরামর্শ ও নির্দেশনা দিয়েছি। মাদক প্রতিরোধে উপজেলা কমিটি সক্রিয় করার জন্য বলা হয়েছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘চট্টগ্রাম, কক্সবাজার ও দিনাজপুর জেলাকে মাদকমুক্ত করার প্রকল্প নেয়া হচ্ছে। কীভাবে এটা বাস্তবায়ন করা হবে, সেটা ঠিক করার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিবকে প্রধান করে কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা কার্যপরিধি, কার্যপদ্ধতি নিশ্চিত করে ব্যবস্থা নেবেন।’

তিনি বলেন, ‘বৃহত্তর চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার মিলে একটি ইউনিট এবং দিনাজপুর অঞ্চলে আরেকটি ইউনিট মিলে পরীক্ষামূলক প্রকল্প নেয়া হবে। মাদকমুক্ত ঘোষণার জন্য যা যা পদক্ষেপ নেয়ার উনারা নেবেন। পরবর্তী সময়ে সারাদেশকে এর আওতায় আনতে চাচ্ছি।’

আ ক ম মোজাম্মেল হক আরও বলেন, ‘প্রকল্পের আওতায় মাদকসেবী, মাদক বিক্রেতা, আশ্রয়-প্রশ্রয় দাতাদের চিহ্নিত করা হবে। চিহ্নিত করার পর তা রোধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এটাই এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য।’

সবকিছু মিলিয়ে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভাল অবস্থায় আছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের অপরাধ দমনের জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অত্যন্ত তৎপর এবং যথেষ্ট নিয়ন্ত্রণে এনেছে। রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তার জন্য যেসব পদক্ষেপ নেয়া দরকার আমরা এর প্রায় ৯০ ভাগ শেষ করেছি। আগামী মে মাসের মধ্যে অত্যাধুনিক নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা সম্পন্ন করব।’

ডোপ টেস্ট নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়েছে কিনা- জানতে চাইলে স্থায়ী কমিটির সভাপতি বলেন, ‘ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী অনুশাসন দিয়েছেন সরকারি চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে ডোপ টেস্ট করা হবে। ডোপ টেস্টের নীতিমালা তৈরি হচ্ছে। কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ক্ষেত্রেও ডোপ টেস্ট করতে হবে। আমরা ব্যাপকভাবে এটা প্রচার করব।’

তিনি আরও বলেন, ‘সরকারি চাকরিজীবীদের যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আসছে, তাদের ডোপ টেস্ট করা হচ্ছে। এটা আমরা শুরু করেছি। এখনই এটা ব্যাপকভাবে করা হচ্ছে না।’

সভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামসহ কমিটির অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

আরএমএম/এএএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]