নিত্যানন্দ পুরী মহারাজের মহাপ্রয়াণোত্তর উৎসব কাল

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৫৬ পিএম, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১

পরমহংস সত্যানন্দ মহারাজ ও ১০৮ স্বামী মঙ্গলদাশ মোহন্ত মহারাজ যোগসিদ্ধাশ্রমের আশ্রমাধ্যক্ষ মহাত্মা স্বামী নিত্যানন্দ পুরী মহারাজের মহাপ্রয়াণোত্তর উৎসব অনুষ্ঠিত হবে বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি)।

চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া উপজেলার কেলিশহর ইউনিয়নের যোগসিদ্ধাশ্রম প্রাঙ্গণে মাঙ্গলিক কর্মসূচি ও স্মৃতিচারণ সভার মাধ্যমে স্মরণ করা হবে অসাম্প্রদায়িক চেতনার বাতিঘর নিত্যানন্দ পুরী মহারাজকে। স্মৃতিচারণ সভায় আলোচনায় অংশ নেবেন বিভিন্ন ধর্মের প্রতিনিধিরা।

হিন্দু ধর্মের প্রতিনিধিত্ব করবেন বোয়ালগাঁও ব্রক্ষ্ম মঠ ও মিশনের অধ্যক্ষ স্বামী তাপসানন্দ গিরি মহারাজ, মুসলিম ধর্মের প্রতিনিধিত্ব করবেন মাইজভান্ডার দরবার শরীফ, গাউছিয়া আমিন মঞ্জিলের শাহাজাদা সৈয়দ রাজীবুল হাসান আল মাইজভান্ডারী, বৌদ্ধ ধর্মের প্রতিনিধিত্ব করবেন পটিয়া কেন্দ্রীয় বৌদ্ধ বিহার ও কল্যাণ প্রকল্পের অধ্যক্ষ ড. সংঘপ্রিয় মহাথেরো, খ্রিস্টান ধর্ম থেকে অংশ নেবেন ফাদার রবার্ট গনছালভেছ, শিখ ধর্ম থেকে অংশ নেবেন চকবাজার গুরিদুয়ারা শিখ টেম্পেলের গ্রন্থি সিংবীর সিং।

সত্যানন্দ কালাবাবা যোগসিদ্ধাশ্রমের প্রধান উপদেষ্টা অধ্যক্ষ মিলন চন্দ্র দেবনাথের সভাপতিত্বে স্মৃতিচারণ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন প্রফেসর ড. কৌশিক দেব, প্রধান বক্তা হিসেবে থাকবেন হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি উত্তম কুমার শর্মা।

উল্লেখ্য, রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) ভোর পৌনে সাতটায় নিজ আশ্রমে পরলোকগমন করেন তিনি। যোগসিদ্ধাশ্রমটিতে ছয় ধর্মের অংশগ্রহণে প্রতি বছরের ২০ এপ্রিল আন্তধর্ম সম্মেলন ও সম্প্রীতি সভা আয়োজিত হয়।

সম্মেলনটির প্রবর্তক নিত্যানন্দ পুরী মহারাজ। সেখানে অংশ নিয়ে বক্তব্য দেন হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান, মুসলিম, শিখ ও বাহাইয়ের ধর্মগুরু ও প্রজ্ঞাবানরা। সেখানে উঠে আসে সম্প্রীতি, সৌহার্দ্য ও মানবতার কথা। আন্তধর্ম সমন্বয়ের এই প্রবক্তা বিশ্বের সব মানুষের মঙ্গল কামনায় ব্রত ছিলেন।

এমআরএম/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]