সৃজনশীল জাতি গঠনে শিশুদের ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিত করার তাগিদ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:৪৭ পিএম, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১

মেধাবী ও সৃজনশীল জাতি গঠনে শিশুদের ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) ঢাকায় অনলাইনে শিশু যৌন নির্যাতন প্রতিরোধে পরিস্থিতি বিশ্লেষণ ও আইনি পর্যালোচনা বিষয়ক আইন ও সালিশ কেন্দ্র আয়োজিত ভার্চুয়াল সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, নতুন প্রজন্ম বিশেষ করে শিশু-কিশোরদের সামাজিক ও ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে না পারলে আগামী দিনের মেধাবী ও সৃজনশীল জাতি নির্মাণের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করা সম্ভব নয়। ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বাবা-মা, শিক্ষক-শিক্ষিকাদের সচেতনতার প্রয়োজনীয়তা অপরিহার্য।

টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, ডিজিটালাইজেশন যত সম্প্রসারিত হবে অপরাধও তত বেশি বাড়বে। এই সংকট মোকাবিলায় সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থাসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে সম্মিলিত উদ্যোগ নিয়ে কাজ করতে হবে।

jagonews24

ডাক ও টেলিযোগাযোগে ডেটা সুরক্ষা ও প্রাইভেসি সুরক্ষার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরে মোস্তাফা জব্বার বলেন, ডেটা সুরক্ষা ও সোশ্যাল মিডিয়া আইনের খসড়া প্রণয়ন করা হয়েছে। যথাযথ পরামর্শ ও মতামত নিয়ে আইনি সংশোধন করা সম্ভব হবে।

‌‘শিশু-কিশোরদেরকে ডিজিটাল ডিভাইস থেকে দূরে সরিয়ে নয় বরং প্যারেন্টাইল গাইডলাইন ব্যবহার করে তাদেরকে ডিজিটাল অপরাধ থেকে রক্ষা করা সম্ভব’ যোগ করেন মন্ত্রী।

মন্ত্রী ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচির সুফল তুলে ধরে বলেন, ‘করোনাকালে ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রয়োজনীয়তা প্রমাণিত হয়েছে।’

অনুষ্ঠানে বক্তারা শিশুদের জন্য ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিতে অভিভাবকদের দৃষ্টি রাখার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। অ্যাপের মাধ্যমে কিভাবে শিশুদের সুরক্ষা করা যায় বিষয়টি নিশ্চিত করতে সরকারের সহযোগিতার প্রয়োজনীয়তার বিষয়টিও তুলে ধরেন তারা।

আইন ও সালিশ কেন্দ্রের কর্মকর্তা মনোয়ার কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য অরোমা দত্ত, বিটিআরসির ভাইস চেয়ারম্যান শুভ্রত রায় চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ব্রেকিং দ্য সাইলেন্সের কর্মকর্তা রোকসানা সুলতানা, আইএসপিএবি সভাপতি এমএ হাকিম এবং লালমাটিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কামরুজ্জামান বক্তৃতা করেন।

আরএমএম/এআরএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]