বিএসএমএমইউয়ে হচ্ছে আরও একটি সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতাল

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৭:০৯ পিএম, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) আরও একটি মাল্টি-ডিসিপ্লিনারি অ্যান্ড সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতাল হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পূর্বপাশে বাংলাদেশ বেতার ভবনে ‘ইস্টাবলিশমেন্ট অব মাল্টি-ডিসিপ্লিনারি সুপার স্পেশালাইজড হসপিটাল আনডার বিএসএমএমইউ, ফেজ-২’ এর অধীনে এ হাসপাতালটি নির্মিত হবে।

দক্ষিণ কোরিয়ার ইকোনোমিক ডেভেলপমেন্ট কো-অপারেশন ফান্ড (ইডিসিএফ) এবং বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে এই হাসপাতালটি নির্মাণ করা হবে। এ উপলক্ষে সম্ভাব্য হাসপাতালটির ফিজিবিলিটি স্টাডি বিষয়ক সভা শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) ডা. মিল্টন হলে অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া।

সম্ভাবনাময় এই হাসপাতালটির বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন প্রকল্প পরিচালক ও ইওনসেই ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক এবং ইওনসেই গ্লোবাল হেলথ সেন্টারের পরিচালক ইউন উ নাম। সভাপতির বক্তব্যে বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও দক্ষিণ কোরিয়ার সরকারের প্রতি ধন্যবাদ জানান এবং কতৃজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

উপাচার্য বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডায়নামিক নেতৃত্বে সাফল্যের সঙ্গে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী ইতোমধ্যে দেশের প্রথম সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতালের ভিত্তিস্থাপন করেছেন। দ্রুততম সময়ের মধ্যেই এই হাসপাতালটির নির্মাণ কাজও শেষ হবে বলে আশা করছি। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় তথা দেশ ও দেশের মানুষের জন্য এটি আরও একটি সুসংবাদ।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সার্বিক সহযোগিতায় বেতার ভবনে ‘ইস্টাবলিশমেন্ট অব মাল্টি-ডিসিপ্লিনারি সুপার স্পেশালাইজড হসপিটাল আনডার বিএসএমএমইউ ফেজ-২’ বাস্তবায়ন করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে দেশের জন্য অত্যন্ত সম্ভাবনায় এই হাসপাতালটিও একদিন বাস্তবে পরিণতি লাভ করবে।

jagonews24

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্জারি অনুষদের ডীন ও সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতালের প্রকল্প পরিচালক অধ্যাপক ডা. মো. জুলফিকার রহমান খান বলেন, দক্ষিণ কোরিয়া ও বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে নির্মাণাধীন দেশের প্রথম সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতালের নির্মাণ কাজ চলতি বছরে মধ্যেই সম্পন্ন হবে। এরমধ্যেই শাহবাগে বেতার ভবনে আরও একটি মাল্টি-ডিসিপ্লিনারি সুপার স্পেশালাইজড হসপিটাল নির্মাণে দক্ষিণ কোরিয়ার সরকারের এগিয়ে আসা নিঃসন্দেহে বাংলাদেশের জন্য একটি বড় সুসংবাদ।

সভায় কোরিয়ান এক্সিম ব্যাংকের চিফ রিপ্রেজেনটেটিভ মি. জুন সিডাক বলেন, এ ধরনের সর্বাধুনিক হাসাপাতাল নির্মাণের অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা দক্ষিণ কোরিয়ার রয়েছে। সংশ্লিষ্ট সকলের সহায়তা পেলে এ সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতালটিও সফলভাবেই বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে।

সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. সাহানা আখতার রহমান, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ রফিকুল আলম, উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. জাহিদ হোসেন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল হান্নান, পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. আবু নাসার রিজভী, পরিচালক (হাসপাতাল) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. মো. জুলফিকার আহমেদ আমিন, প্রক্টর অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোজাফফর আহমেদ, প্রধান প্রকৌশলী এ কে এম হাবিবুর রহমান, উপ-প্রকল্প পরিচালক সহকারী অধ্যাপক ডা. মো. নূর-ই-এলাহী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এমইউ/এএএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]