টেকসই অবকাঠামো নির্মাণে প্রয়োজন প্রশিক্ষিত শ্রমিক

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৪৯ পিএম, ০৩ মার্চ ২০২১

দেশে সকল ভৌত অবকাঠামোসহ অন্যান্য কর্মকাণ্ড টেকসই করতে প্রশিক্ষিত নির্মাণশ্রমিক প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

বুধবার (৩ মার্চ) দক্ষ শ্রমিক বিনির্মাণে এলজিইডি নির্মিত ‘নির্মাণ দক্ষতা প্রশিক্ষণ কেন্দ্র’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা জানান তিনি। মন্ত্রী ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।

মন্ত্রী বলেন, দেশ উন্নয়নের পথে দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। প্রচুর অবকাঠামো নির্মাণ হচ্ছে। এসব কর্মকাণ্ড টেকসই করার লক্ষ্যে প্রয়োজন দক্ষ প্রকৌশলী, ঠিকাদার এবং নির্মাণশ্রমিক। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর কর্তৃক স্থাপিত নির্মাণ দক্ষতার প্রশিক্ষণ কেন্দ্র দক্ষ শ্রমিক নির্মাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, প্রশিক্ষিত শ্রমিকরা ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ এবং ইট গাঁথুনি, রড বাইন্ডিং ও ব্যন্ড, বালু সিমেন্টের মিশ্রণসহ অন্যান্য কর্মকাণ্ড দ্রুততম সময়ে শেষ করতে পারেন। এতে একদিকে যেমন সময়ের অপচয় হয় না, অন্যদিকে ব্যয় কমে আসে। আমাদের দেশে প্রচুর মানুষ বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত আছেন। কিন্তু স্ব স্ব পেশায় প্রশিক্ষিত না হওয়ার কারণে তারা যেমন লাভবান হন না, তেমনি দেশও সুবিধা নিতে পারছে না।

তাজুল ইসলাম বলেন, যে সকল শ্রমিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করবেন তাদের অভিজ্ঞতা অনুযায়ী সার্টিফিকেট দেয়া হবে। এই সার্টিফিকেট দিয়ে তারা যেন দেশ ও দেশের বাইরে কাজ করার পাশাপাশি
দক্ষ শ্রমিক হিসেবে চিহ্নিত হয় সে ব্যবস্থা করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, অনেক ছেলে-মেয়ে চাকরি না করে ঠিকাদার হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। প্রকৌশলীরা বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়/কলেজ হতে লেখাপড়া করে আসেন। কিন্তু যারা ঠিকাদার হিসেবে কাজ করেন বা নির্মাণ কাজের সঙ্গে শ্রমিক হিসেবে জড়িত হন তাদের কোনো ধরনের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা বা প্রশিক্ষণ থাকে না। তাদেরকে যদি পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা যায় তাহলে দেশে অনেক নতুন ঠিকাদার তৈরি করা সম্ভব।

মন্ত্রী জানান, দেশের অবকাঠামো উন্নয়নে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর এলজিইডি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই এই প্রতিষ্ঠানের অধীনে পরবর্তীতে একটি বড় প্রশিক্ষণকেন্দ্র নির্মাণ করার পরিকল্পনা রয়েছে। যাতে করে এলজিইডির অবকাঠামো নির্মাণে সময় কম লাগে এবং অর্থ সাশ্রয় হয়। এ সময় মন্ত্রী ম্যাসনরি কাজের উপর একটি প্রশিক্ষণ কোর্সেরও উদ্বোধন করেন।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী মো. আব্দুর রশীদ খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

অন্যান্যেল মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মেসবাহ উদ্দিন এবং বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মো. মোরাদ হোসেন মোল্ল্যাসহ এলজিইডির সকল অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী, প্রকল্প পরিচালক, জেলা নির্বাহী প্রকৌশলীরা ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন।

আইএইচআর/এএএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]