৭ মার্চ উপলক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান সেজেছে ভিন্নরূপে

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১১:৪৮ এএম, ০৭ মার্চ ২০২১

ভোরের আলো তখনও ফোটেনি। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের শিখা চিরন্তন অগ্নিশিখার সামনে দাঁড়িয়ে রশি টেনে ধীরে ধীরে জাতীয় পতাকা ওপরে তুলছেন কর্তব্যরত দুজন আনসার। বছরের প্রতিদিনই জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হলেও অন্যান্য দিনের চেয়ে এ দিনটি একটু ব্যতিক্রম লক্ষ্য করা যায়।

শিখা চিরন্তনের চৌহদ্দিসহ উদ্যানের ভেতরে বাইরে বর্ণিল লাইটিং করা হয়েছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি সম্বলিত ব্যানার, পোষ্টার ও প্লাকার্ডে ছেয়ে গেছে সর্বত্র। ৫০ বছর আগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের সেই দিনকে স্মরণ করতে এ আয়োজন।

jagonews24

লাখো জনতার উপস্থিতিতে বঙ্গবন্ধুর মন্ত্রমুগ্ধ ভাষণে উজ্জীবিত হয়ে স্বাধীনতা সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়ে গোটা বাঙালি জাতি।

রোববার (৭ মার্চ) সরেজমিন সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ঘুরে দেখা গেছে মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে উদ্যানের প্রধান দুটি প্রবেশদ্বারে ‘জয় বাংলা’ লেখা বিশাল আকৃতির গেট নির্মিত হয়েছে। শাহবাগ মোড় থেকে টিএসসি এবং রমনা উদ্যানের বিপরীতে ইঞ্জিনিয়ারিং ইনষ্টিটিউট থেকে শাহবাগ পর্যন্ত রাস্তার দুপাশে দেয়ালে ও আইল্যান্ডে বঙ্গবন্ধুর সেই ঐতিহাসিক ভাষণের বিভিন্ন বক্তব্য বিভিন্ন আকৃতির বিলবোর্ডে টানিয়ে রাখা হয়েছে। শিখা চিরন্তনের পশ্চিম দিকে ঘাষের ওপর লাইটিংয়ের মাধ্যমে লাল-সবুজের জাতীয় পতাকা ও পূর্বদিকে ৭ মার্চ লেখা দেখা যায়।

jagonews24

শিখা চিরন্তনের অদূরে মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের দুটি বাসে গাঁদা ও গোলাপ ফুল দিয়ে সাজাতে দেখা যায়। আজ শহরময় এটি ঘুরে বেড়াবে বলে জানা যায়।

রোববার সকালে সরেজমিন রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে বিভিন্ন এলাকায় বঙ্গবন্ধুর সেই ঐতিহাসিক ভাষণ প্রচার করা হচ্ছে। ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সংঠন দিবসটিকে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকালে ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

এমইউ/এমএইচআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]