বিকেলে সড়কে বেড়েছে যান চলাচল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৪৪ পিএম, ২৮ মার্চ ২০২১

হেফাজতে ইসলামের ডাকা হরতালে রোববার (২৮ মার্চ) বিকেলে নগরে বেড়েছে যান চলাচল। মানুষও জরুরি প্রয়োজনে বের হচ্ছেন। ফলে এখন অনেকটাই ঢিলেঢালাভাবে চলছে হেফাজতের হরতাল।

রোববার বিকেলে রাজধানীর মহাখালী, ফার্মগেট, কারওয়ান বাজার, আগারগাঁও, তেজগাঁও, মগবাজার, প্রেস ক্লাব, গুলিস্তান এলাকা ঘুরে এই চিত্র দেখা যায়। এর মধ্যে গুলিস্তান এলাকায় ঢাকার বিভিন্ন গন্তব্যের যাত্রীবাহী বাস বেশি দেখা গেছে। প্রতিটি বাসে গড়ে ২৫ জন করে যাত্রী যাতায়াত করছেন। সিএনজি, অটোরিকশাও যাত্রী পরিবহন করছে।

সদরঘাট থেকে মিরপুর-১৪ নম্বরে যাত্রী নিয়ে যাচ্ছিল বিহঙ্গ পরিবহন। এই পরিবহনের চালক হাফিজ উদ্দিন বলেন, হরতালের কারণে সারাদিন গাড়ি বন্ধ রেখেছি। রাস্তায় তেমন যাত্রীও ছিল না। এখন যাত্রী পাচ্ছি। তাই গাড়ি নিয়ে বের হয়েছি।

jagonews24

এদিকে রোববার সকাল থেকে মহাখালী বাস টার্মিনালের সামনে দূরপাল্লার বাস রেখে কৃত্রিম যানজট তৈরি করে ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি। ফলে মহাখালী উড়াল সড়ক থেকে নাবিস্কো পর্যন্ত সড়কে যান চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। কিন্তু এই জটলা কমাতে পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের কোনো সদস্যকে দেখা যায়নি। শেরপুর, জামালপুর, নেত্রকোনা, ময়মনসিংহের যে বাসগুলো সড়কে রাখা হয়েছে, তার কোনোটিতেই যাত্রী দেখা যায়নি। চালকরা নিজ নিজ আসনে বসে রয়েছেন। অন্যদিকে মহাখালী বাস টার্মিনাল ফাঁকা দেখা গেছে।

গতকাল (২৭ মার্চ) ঢাকা শহর ও শহরতলির সব রুটে বাস-মিনিবাস চলাচল অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্লাহ। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তিনি হরতালের মধ্যে ঢাকা শহর ও শহরতলির সব রুটে বাস-মিনিবাস চলাচল অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন। রোববার খন্দকার এনায়েত উল্লাহ’র মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিয়েও সাড়া পাওয়া যায়নি।

এমএমএ/এআরএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]