চট্টগ্রাম বন্দর এলাকায় দূষণ করলে জেল-জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:০০ পিএম, ০৫ এপ্রিল ২০২১
ফাইল ছবি

চট্টগ্রাম বন্দর এলাকায় দূষণ করলে সর্বোচ্চ ৫ লাখ টাকা জরিমানা ও এক বছরের কারাদণ্ডের বিধান রেখে ‘চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ আইন, ২০২১’ এর খসড়া চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

সোমবার (৫ এপ্রিল) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল মন্ত্রিসভা বৈঠকে এই অনুমোদন দেয়া হয়। গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী ও সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে মন্ত্রীরা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠকে যোগ দেন।

বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম প্রেস ব্রিফিংয়ে এই অনুমোদনের কথা জানান।

তিনি বলেন, এ আইনে একটা পরিচালনা প্রশাসক বোর্ডে একজন চেয়ারম্যানসহ সাতজনের বোর্ড থাকবে। কিভাবে ভাড়া-টোল নির্ধারণ করতে হবে তার জন্য তফসিল তৈরি করে সরকারের কাছে অনুমোদন নিতে হবে। তবে ৫ হাজার টাকার কম হলে অনুমোদন নিতে হবে না।

খসড়া আইনে বন্দর উন্নয়ন সম্প্রসারণে একটি তহবিল রাখা হয়েছে বলেও জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

আইন অনুযায়ী বিভিন্ন অপরাধে শাস্তি হতে পারে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, কর্তৃপক্ষের আইন লঙ্ঘন করলে বিভিন্ন অপরাধে সর্বোচ্চ এক মাস থেকে এক বছরের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ এক লাখ টাকা থেকে ৫ লাখ টাকার অর্থ দণ্ড বা উভয় দণ্ডের বিধান রয়েছে।

তিনি বলেন, কেউ যদি দূষণ সৃষ্টি করে সেক্ষেত্রে ৫ লাখ টাকা জরিমানা ও এক বছরের কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। পোর্টে কোনো জাহাজ থেকে স্বাস্থ্যহানি ঘটে এমন কোনো বিষয় বা দ্রব্য মজুদ করলে বা বন্দর দূষণ করলে এ শাস্তি হবে।

ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন আইন অনুমোদন

এছাড়া বৈঠকে ‘বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন আইন, ২০২১’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, বাংলাদেশ স্মল অ্যান্ড কটেজ ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশন অ্যাক্ট ১৯৫৭ সর্বশেষ ২০০৮ সালে বাংলায় অনুবাদ করা হয়। আইনকে আরও যুগোপযোগী করতে এ খসড়া প্রস্তুত করা হয়। আগে শুধুমাত্র ক্ষুদ্র কুটির শিল্প ছিল এখন অতি ক্ষুদ্র, মাঝারি ও কারুশিল্পকে এর অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

সচিব বলেন, আগে অনুমোদিত মূলধন ছিল এক কোটি টাকা, খসড়া আইনে যা তিন হাজার কোটি টাকা করা হয়েছে। এ আইনে বিসিক সেবাধর্মী কাজও করতে পারবে।

তিনি বলেন, বিসিকের জমি দখল বা অবৈধ প্লট হস্তান্তর করলে ছয় মাস থেকে দুই বছর কারাদণ্ড বা ১০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকা বা উভয় দণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে।

দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করার জন্য প্রস্তাবিত আইনে শিল্প উদ্যোক্তাদের ওয়ান স্পট সার্ভিস দেয়ার বিধান রাখা হয়েছে বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

এছাড়া সভায় বিচার প্রশাসন ইনস্টিটিউটের অফিসের সময়সূচি প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয় জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ইনস্টিটিউট সকাল আটটা থেকে বিকেল তিনটা পর্যন্ত চলবে, যখন ট্রেনিং চলবে শুক্রবার ছুটি থাকবে, ট্রেনিং না চললে তখন শুক্রবার ও শনিবার ছুটি থাকবে।

আরএমএম/এমআরআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]