‘লকডাউনে শ্রমিক ছাঁটাই মেনে নেয়া হবে না’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:২৫ পিএম, ১১ এপ্রিল ২০২১

করোনা ও লকডাউনের নামে গার্মেন্টসে বেতন-বোনাস কর্তন ও শ্রমিক ছাঁটাই মেনে নেয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে গার্মেন্টস শ্রমিক অধিকার আন্দোলন নামে একটি সংগঠন।

রোববার (১১ এপ্রিল) বেলা ১২টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে একটি সমাবেশ থেকে তারা এ হুঁশিয়ারি দেয়।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন অধিকার আন্দোলনের সমন্বয়ক শহীদুল ইসলাম সবুজ। বক্তব্য রাখেন শ্রমিক নেতা অ্যাড. মাহবুবুর রহমান ইসমাইল, মোহাম্মদ ইয়াসিন, জুলহাসনাইন বাবু, শামীম ইমাম, সাইফুল ইসলাম, বিপ্লব ভট্টাচার্য, সাজিদ হোসেন প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘করোনা ও লকডাউনে গার্মেন্টস মালিকদের ভূমিকা নিয়ে গত বছরের মতো এবারও আমরা শঙ্কিত। গত বছর মালিকরা এই শ্রমিকদের নিয়ে এক অমানবিক খেলায় মেতেছিল। ঈদে লাখ লাখ শ্রমিকের বেতন-বোনাস কর্তন করে ন্যায্য পাওনা থেকে বঞ্চিত করেছিল। কয়েক লাখ শ্রমিককে ছাঁটাইও করেছিল। মালিকদের এই ভূমিকার প্রেক্ষিতে সরকারকেও নীরব থাকতে দেখেছি আমরা।’

নেতৃবৃন্দ বলেন, ‘আমরা লক্ষ্য করছি লকডাউনের অজুহাতে একদিকে দেশের অন্যান্য শিল্প কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হচ্ছে, অন্যদিকে মালিক পক্ষ গার্মেন্টস কারখানা চালু রাখার পাঁয়তারা করছে। এটা দ্বিচারিতা ও এক দেশে দুই নীতির শামিল, যা কোনো ক্রমেই গ্রহণযোগ্য নয়। করোনা-লকডাউনের অজুহাতে শ্রমিকদের মজুরি-বেতন-বোনাস কর্তন ও শ্রমিক ছাঁটাই কোনোভাবেই মেনে নেয়া হবে না।’

নেতৃবৃন্দ আগামী ২০ রমজানের মধ্যে গার্মেন্টস শ্রমিকদের মজুরি বোনাসসহ সকল বকেয়া পাওনাদি পরিশোধ করার আহ্বান জানান। অন্যথায় শিল্পাঞ্চলে শ্রম অসন্তোষ তৈরি হলে মালিক ও সরকারকেই দায় নিতে হবে বলে তারা হুঁশিয়ারি দেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন, ‘জীবন ও জীবিকা নিশ্চিত না করে লকডাউন বা করোনা মোকাবেলা কোনক্রমেই সম্ভব না।’

লকডাউনে শ্রমিক, শ্রমজীবী, নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য নগদ প্রণোদনাসহ আর্মি রেটে পূর্ণ রেশনিং-এর ব্যবস্থা চালু করার আহ্বান জানান তারা।

ইএআর/জেডএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]