রাজধানীতে নারীর মৃত্যু, স্বামীর দাবি আত্মহত্যা

ঢামেক প্রতিবেদক
ঢামেক প্রতিবেদক ঢামেক প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৪৮ পিএম, ১৩ এপ্রিল ২০২১
ফাইল ছবি

রাজধানীর শ্যামপুরের জুরাইন এলাকায় লতা রানী দাস (৩৬ ) নামে এক নারী মারা গেছেন। নিহতের স্বামীর দাবি, রানী দাস আত্মহত্যা করেছেন।

তবে এ ঘটনায় স্বামী তপন দাশকে হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পে সন্দেহ করে আটক রাখা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দুপুর দেড়টার দিকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের গ্রামের বাড়ি নরসিংদীর ঋষিপাড়ার গ্রামে। তিনি মৃত রামচরন দাসের মেয়ে। বর্তমানে শ্যামপুরের জুরাইনের ঋষিপাড়ার থাকতেন।

নিহতের স্বামী তপন দাস বলেন, 'আমাদের ৫ বছর আগে বিয়ে হয়। একটা সন্তান হয়েছিল সন্তানটি মারা যায়। এরপর সন্তানের শোকে এক বছর আমার বাড়িতে আসেনি। এরপর থেকে শিব মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন। কোন বিষয় নিয়ে অল্পতেই রেগে যেত। সে কথায় কথায় গলায় ফাঁস লাগাতে যেত। এজন্য তার পরিবারকে বার বার বলেছি। আমার নামে মামলাও দিয়েছিল। পরে সেটা পারিবারিকভাবে মীমাংসা করা হয়। এই ভয়ে আমি ১৫-২০ দিন আগে ডিভোর্স লেটার পাঠাই। তারপরও গতকাল সোমবার জোরপূর্বক তার দুলাভাই শিবকে আমার বাসার দিয়ে যায়। আজ গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।'

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া জানান, এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার স্বামী তপন দাসকে আটক করা হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানাকে অবগত করা হয়েছে।

জেডএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]