পুলিশের হাতে অযাচিতভাবে হেনস্তার শিকার হন ডা. জেনি : স্বাচিপ

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৩:৩২ পিএম, ১৯ এপ্রিল ২০২১

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) রেডিওলজি অ্যান্ড ইমেজিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. সাঈদা শওকত জেনির সঙ্গে পুলিশের আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ)। একই সঙ্গে দোষীদের বিরুদ্ধে শাস্তির দাবি জানানো হয়।

স্বাচিপের আহ্বায়ক অধ্যাপক আবু নাসার রিজভী ও সদস্য সচিব ডা. আরিফুল ইসলাম জোয়ারদার টিটো স্বাক্ষরিত প্রতিবাদলিপিতে বলা হয়, '১৮ এপ্রিল রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডে ডা. সাঈদা শওকত জেনি উনাই কর্ম ক্ষেত্র থেকে ফেরার পথে পুলিশের হাতে অযাচিতভাবে হেনস্তার শিকার হন। স্বাচিপ, বিএসএমএমইউ শাখা মনে করে যে, যার খণ্ডিত অংশ চিকিৎসক সমাজকে হেয় প্রতিপন্ন করতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল করা হয়। আমরা পুলিশ ও প্রশাসনের এমন গর্হিত কাজের তীব্র নিন্দা জানাই।

প্রতিবাদলিপিতে আরও বলা হয়, ‘বর্তমানে কোভিডের এ সংকটজনক পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে সাড়া দিয়ে চিকিৎসকরা যখন সম্মুখসারিতে ঝুঁকি নিয়ে লড়ে যাচ্ছে তখন হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে বাসায় ফেরার পথে পুলিশ ডা. জেনির গাড়ি থামিয়ে তার কাছে পরিচয়পত্র দেখতে চায়। এ সময় নিজের পরিচয় ও গাড়িতে থাকা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের লোগো সম্বলিত স্টিকার, পরিচালক ইস্যু করা পাস ও বিএসএমএমইউর লোগোসহ ডাক্তারের নামাঙ্কিত অ্যাপ্রন দেখালেও সবকিছুকে ভুয়া বলে ডা. জেনিকে ইচ্ছাকৃতভাবে হেনস্থা করা হয়। ’

‘ডাক্তারদের মুভমেন্ট পাস লাগবে না বলে ইতোমধ্যে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হলেও পুলিশ ডা. জেনির কাছে অন্যায়ভাবে মুভমেন্ট পাস চায়। আমরা আরও বিস্ময়ের সঙ্গে দেখলাম, বিতর্কের একপর্যায়ে পুলিশ বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের অভিযোগে গ্রেফতার পাপিয়ার সঙ্গে তুলনা করছে। যা একজন নারী চিকিৎসকের জন্য চরম অপমানের। আমরা মনে করি এর মাধ্যমে পুলিশ শুধু ডা. জেনিকে নয়, বরং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসককে এবং সর্বোপরি একজন সম্মানিত নারীকে হেয় করেছে। ’

এমইউ/জেডএইচ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - jagofe[email protected]