স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করায় চট্টগ্রাম নগরে ৩২ মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:২০ পিএম, ২০ এপ্রিল ২০২১

করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে দেশব্যাপী চলছে কঠোর লকডাউন। আর এই লকডাউন বাস্তবায়নে চট্টগ্রাম নগরজুড়ে অব্যাহত অভিযান পরিচালনা করেছে জেলা প্রশাসনের একাধিক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) দিনব্যাপী দশজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে পরিচালিত এই অভিযানে ৩২ মামলায় মোট ৮ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। একই সঙ্গে সচেতনতার জন্য ৮০০ পিস মাস্ক বিতরণ করা হয়।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, নগরের পতেঙ্গা, ইপিজেড ও বন্দর এলাকায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফুল হাসান ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে দুই মামলায় ৬০০ টাকা জরিমানা আদায় করেন এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হুছাইন মুহাম্মদ পাঁচলাইশ, বাকলিয়া ও চকবাজার এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে তিন মামলায় ৮০০ টাকা জরিমানা আদায় করেন।

একই সময়ে, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুমা জান্নাত কোতোয়ালি, সদরঘাট ও ডবলমুরিং এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ছয় মামলায় এক হাজার ৯০০ টাকা জরিমানা আদায় করেন এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আশরাফুল আলম বন্দর ও ইপিজেড এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে দুই মামলায় এক হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন।

জানা গেছে, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী খুলশী, বায়েজিদ ও চান্দগাঁও এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে তিন মামলায় এক হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জিল্লুর রহমান পাহাড়তলী, হালিশহর ও আকবরশাহ এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে চার মামলায় এক হাজার ৪০০ টাকা জরিমানা আদায় করেন।

আবার, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আতিকুর রহমান পাঁচলাইশ, বাকলিয়া ও চকবাজার এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ছয় মামলায় ৮০০ টাকা জরিমানা আদায় করেন এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্লাবন কুমার বিশ্বাস পাহাড়তলী, হালিশহর ও আকবরশাহ এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে পাঁচ মামলায় ৮০০ টাকা জরিমানা আদায় করেন।

এদিকে, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মামনুন আহমেদ অনিক খুলশী, বায়েজিদ ও চান্দগাঁও এলাকায় এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মিজানুর রহমান কোতোয়ালি, সদরঘাট ও ডবলমুরিং এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে জনসাধারণকে সচেতন করেন।

এছাড়াও লকডাউন সফল করার লক্ষ্যে সন্ধ্যার পর থেকে আরও দুইজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে নগরের বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে বলে জানা যায়।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওমর ফারুক বলেন, ‘কঠোর লকডাউন বাস্তবায়ন এবং স্বাস্থবিধি নিশ্চিতে আজও নগরের বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। এসব অভিযানে জরিমানার পাশাপাশি সচেতনতার জন্য মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে।’

জেলা প্রশাসনের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

মিজানুর রহমান/এমআরএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]