তিন মামলায় কারাগারে হেফাজত নেতা হারুন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক চট্টগ্রাম
প্রকাশিত: ০১:১৫ এএম, ৩০ এপ্রিল ২০২১

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের বিলুপ্ত কমিটির কেন্দ্রীয় গবেষণা সম্পাদক মুফতি হারুন ইজহারকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) রাতে চট্টগ্রাম সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বেগম আঞ্জুমান আরার ভার্চুয়াল আদালত এ আদেশ দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চট্টগ্রাম জেলা কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক হুমায়ুন কবির জাগো নিউজকে বলেন, ‘হাটহাজারী থানা পুলিশ হারুন ইজহারকে তিন মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করেন। পরে আদালত শুনানি শেষে তাকে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন।’

এর আগে বুধবার (২৮ এপ্রিল) দিবাগত রাত ১২টার দিকে নগরের খুলশি থানার লালখান বাজার মাদরাসা থেকে র‍্যাবের একটি দল তাকে আটক করে

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম র‍্যাবের সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) আনোয়ার হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে গত ২৬ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশে আগমনের বিরোধিতায় দেশজুড়ে ব্যাপক সহিংসতা শুরু করে একটি কুচক্রী মহল। তারা চট্টগ্রামের হাটহাজারীতেও ব্যাপক তাণ্ডব চালায়। র‍্যাব এসব কর্মকাণ্ডের ওপর গোয়েন্দা নজরদারি রাখে।’

তিনি আরও বলেন, ‘গোয়েন্দা তথ্যে হাটহাজারীর সহিংসতায় হেফাজত নেতা হারুন ইজহারের সম্পৃক্ততার প্রমাণ পাওয়া যায়। তাই তাকে চট্টগ্রামের লালখান বাজার মাদ্রাসা থেকে আটক করা হয়েছে। এরপর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তাকে হাটহাজারী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।’

জানা গেছে, ২০১৩ সালের ১০ জুলাই চট্টগ্রামের লালখান বাজার মাদরাসায় ভয়াবহ গ্রেনেড বিস্ফোরণের ঘটনায় হারুন ইজহার গ্রেফতার হন। দীর্ঘদিন কারাগারে থাকার পর মুক্তি পান তিনি।

হারুন ইজহার বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টির সভাপতি মুফতি ইজহারুল ইসলাম চৌধুরীর বড় ছেলে।

মিজানুর রহমান/ইএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]