মাস্ক না পরায় বসুন্ধরা সিটিতে ১৭ জনকে সাড়ে ৫ হাজার টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:০০ পিএম, ০৪ মে ২০২১

ঈদ সামনে রেখে খোলা থাকা মার্কেট ও দোকানপাটে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানার কথা বলা হলেও অনেকেই তা মানছেন না। এজন্য স্বাস্থ্যবিধি মানাতে অভিযানে নেমেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

মঙ্গলবার (৪ মে) দুপুরে রাজধানীর পান্থপথে বসুন্ধরা সিটি শপিং কমপ্লেক্সে অভিযান চালিয়ে ১৭ জনকে সাড়ে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ডিএমপির ভ্রাম্যমাণ আদালত।

অভিযানে কারও নাকের নিচে, কারও হাতে, কারও বা থুতনিতে মাস্ক থাকায় মোট সাড়ে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অভিযানের নেতৃত্ব দেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ রফিকুল হক।

বসুন্ধরা শপিংমলের পূর্ব পাশে অভিযান শুরুর পরই নাকের নিচে মাস্ক পরে ঘোরাফেরার সময় নিশাদ নামে এক দোকান কর্মচারীকে ২০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

অভিযান চলাকালে শাওমির মোবাইল শো রুমে মাস্ক না পরেই ক্রেতার সঙ্গে কথা বলছিলেন কর্মচারী আহসান। বিষয়টি ম্যাজিস্ট্রেটের নজরে আসায় তাকে ৫০০ টাকা জরিমানার আদেশ দেয় ভ্রাম্যমাণ আদালত।

অভিযান শেষে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শেখ রফিকুল হক বলেন, ‘সোমবার (৩ মে) থেকে মার্কেটে স্বাস্থ্যবিধি পরিপালনের বিষয়টি কঠোরভাবে মনিটরিং করতে পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশনা দিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ সচিবালয়। আজকের অভিযানের উদ্দেশ্য জরিমানা নয়, মূলত করোনার সংক্রমণ রোধে সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নই লক্ষ্য।’

‘অভিযানে দেখা যায়, অনেকেই মাস্ক পরছেন না, পরলেও কারও নাকের নিচে, কারও থুতনি কিংবা হাতে। এতে করে তারা নিজে যেমন করোনার ঝুঁকিতে পড়ছেন, তেমনি অন্যদেরও ঝুঁকিতে ফেলছেন। সবচেয়ে দুঃখজনক হচ্ছে খোদ বিক্রেতারাও অনেকে মাস্ক পরছেন না। এজন্য ক্রেতা-বিক্রেতা মিলে ১৭ জনকে দণ্ডবিধি ১৮৬০ এর ২৬৯ ধারা অনুযায়ী সাড়ে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘জরিমানা করাই আমাদের মূল উদ্দেশ্য নয়। মূল উদ্দেশ্য জনসাধারণকে স্বাস্থ্যবিধি মানতে উদ্বুদ্ধ করা। এ সময় জনসাধারণের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।’

টিটি/এসএস/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]