চট্টগ্রামে বেওয়ারিশ হিসেবে তরুণীকে দাফন : গাজীপুরে গ্রেফতার খুনি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৩৯ পিএম, ০৯ মে ২০২১ | আপডেট: ০৬:৪০ পিএম, ০৯ মে ২০২১

চট্টগ্রামের পাহাড়তলীর একটি বাড়ি থেকে গত ১ এপ্রিল এক তরুণীর গলিত মরদহে উদ্ধার হয়। বেওয়ারিশ হিসেবে মরদেহ দাফনের পর ওই বাসার একটি আলামতের সূত্র ধরে ভুক্তভোগীর পরিবারকে খুঁজে বের করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। তদন্তের ধারাবাহিকতায় গাজীপুর থেকে খুনিকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি।

রোববার (৯ মে) ভোরে গাজীপুরের টঙ্গি এলাকায় অভিযান চালিয়ে পল্লব বর্মণ (৩৪) নামে ওই ব্যক্তিতকে গ্রেফতার করা হয়। সিআইডির প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান সিআইডির চট্টগ্রাম বিভাগের উপ-মহাপরিদর্শক হাবিবুর রহমান।

তিনি বলেন, গত ১ এপ্রিল চট্টগ্রামের পাহাড়তলীর ওই বাসা থেকে তরুণীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এর ২৬ দিন পর পর্যন্ত ওই তরুণীর কোনো পরিচয় পাওয়া যায়নি। এর মধ্যে বেওয়ারিশ হিসেবে তার দাফন সম্পন্ন হয়। পরে একটি আলামতের সূত্র ধরে ওই তরুণীর বাবার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। পুলিশের কাছে থাকা মেয়ের পরনের কাপড় দেখে ২৬ এপ্রিল শনাক্ত করেন বাবা। পরে এ বিষয়ে পাহাড়তলী থানায় একটি হত্যা মামলা করা হয়।

তরুণীর বাবার বক্তব্য অনুযায়ী, গত ১৮ জানুয়ারি দুপুর ১২টায় তার ২৮ বছর বয়সী মেয়েকে ওই এলাকার পল্লব বর্মণ নামে এক যুবক অপহরণ করেন। তিনি গাজীপুরের কালিয়াকৈর থানায় এ নিয়ে একটি মামলাও করেছেন।

তদন্তের ধারাবাহিকতায় পল্লব বর্মণের অবস্থান শনাক্ত করে গাজীপুরের টঙ্গী এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পল্লব জানান, পরকীয়ার জেরে ওই তরুণী পল্লবের সঙ্গে পালিয়ে যান। ২ মার্চ তাদের মধ্যে মনোমালিন্য হলে বেলের শরবতের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে খাইয়ে তরুণীকে হত্যা করেন পল্লব। এরপর টাকা-পয়সা নিয়ে ঘরের বাইরে তালা দিয়ে তিনি পালিয়ে যান।

টিটি/এমএসএইচ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]