রাজধানীর কোথাও যানজট কোথাও ফাঁকা

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৬:০৪ পিএম, ১৩ মে ২০২১

করোনা সংক্রমণ রুখতে সরকারিভাবে বিধিনিষেধ থাকা সত্ত্বেও নাড়ির টানে স্বজনদের সঙ্গে ঈদ করতে গত কয়েক দিনে রাজধানী ঢাকা ছেড়েছেন লাখ লাখ বাসিন্দা। আন্তঃজেলা বাস পরিবহন বন্ধ থাকায় কাঙ্ক্ষিত গন্তব্যস্থলে পৌঁছাতে পথে পথে যানবাহন বদল করে নানা বাধাবিপত্তিকে সঙ্গী করে মানুষ গ্রামে ছুটছে।

traffic3

ঈদের আগের দিন বৃহস্পতিবার (১৩ মে) শহর ছেড়ে গ্রামমুখী মানুষের স্রোত অব্যাহত রয়েছে। লাখ লাখ মানুষ গ্রামে চলে যাওয়ায় এর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে রাজধানীতে। ঈদ শপিংকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন ছোট-বড় শপিংমল ও মার্কেট-বিপণী বিতানে বিপুল সংখ্যক মানুষের উপস্থিতি এবং সেসব এলাকার সড়কে যান চলাচল করলেও এগুলো ছাড়া রাজধানীর অন্যসব এলাকার রাস্তাঘাটে এক ধরনের নীরবতা নেমে এসেছে। বলতে গেলে মার্কেট ও শপিং এলাকার সঙ্গে অন্যান্য এলাকার চিত্র সম্পূর্ণ বিপরীত।

traffic

বৃহস্পতিবার দুপুরে সরেজমিনে রাজধানীর নিউমার্কেটে, ধানমন্ডি, কলাবাগান, লালবাগ ও রমনা থাকা এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, অধিকাংশ এলাকার রাস্তাঘাটে যান চলাচল খুবই কম। রাস্তা ফাঁকা থাকায় রিকশা, মোটরসাইকেল ,প্রাইভেটকার ও বাস দ্রুত গতিতে গন্তব্যে ছুটে চলেছে। যান চলাচল কম থাকায় বিভিন্ন সিগন্যালে ট্রাফিক সার্জেন্ট ও কনস্টেবলকে রিলাক্স মুডে ডিউটি করতে দেখা যায়।

তবে বিভিন্ন শপিংমল ও মার্কেট এলাকার চিত্র একেবারেই বিপরীত। ফুটপাত থেকে শুরু করে সর্বত্র বিপুল সংখ্যক মানুষের উপস্থিতিতে কেনাকাটাও জমে উঠেছে। রাস্তাঘাটে বিভিন্ন যানবাহনের ভিড়ও দেখা যায়।

traffic

তবে দুপুর বেলা দুই দফায় থেমে থেমে বৃষ্টি হওয়ায় মার্কেটে আগত ক্রেতাসহ সবাই ভোগান্তিতে পড়েছেন। অনেকেই ভিজা কাপড় পরেই ঈদ মার্কেটিং শেষ করেন।

এমইউ/এআরএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]