বিক্রয়কর্মীদের স্বাস্থ্য সনদ না থাকায় সুপারশপকে জরিমানা ২ লাখ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৫২ পিএম, ০৯ জুন ২০২১

পণ্যে আমদানিকারক তথ্য না থাকা, বিক্রয়কর্মীদের স্বাস্থ্য সনদ না থাকাসহ বেশকিছু অনিয়মের কারণে গুলশানের দেদার সুপারশপকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেছে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ।

বুধবার (৯ জুন) নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট শাহ্ মো. সজীবের নেতৃত্বে ওই সুপারশপে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়।

অভিযানকালে অনেক পণ্যে আমদানিকারকের কোনো স্টিকার পাওয়া যায়নি। কিছু পণ্যে স্টিকার পাওয়া গেলেও সেগুলো অসম্পূর্ণ ও অস্পষ্ট।

jagonews24

এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট শাহ্ মো. সজীব জানান, নিরাপদ খাদ্য আইন, ২০১৩ অনুযায়ী কাঁচাখাদ্য যেমন- মাছ, মাংস বিক্রির সঙ্গে জড়িত সেলসম্যানদের অবশ্যই স্বাস্থ্য সনদ থাকতে হবে। কিন্তু দেদার সুপারশপের বিক্রয়কর্মীদের কারও স্বাস্থ্য সনদ নেই। পাশাপাশি বাদাম, খেজুর, ডাল, মসলা ও চালজাতীয় বিপুল পরিমাণ খাদ্য মোড়কীকরণে যথাযথ বিধি মানা হয়নি। এসব অপরাধে নিরাপদ খাদ্য আইন, ২০১৩ এর বিধান অনুযায়ী দুই লাখ টাকা অর্থদণ্ড ও তাৎক্ষণিক আদায় করা হয়।

পরে ওই সুপারশপ কর্তৃপক্ষকে খাদ্যদ্রব্য উৎপাদন, মোড়কীকরণ, সংরক্ষণ, প্রক্রিয়াকরণ, মজুত ও বিক্রয়ে নিরাপদ খাদ্য আইনের সংশ্লিষ্ট বিধি অনুযায়ী পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা, খাদ্য সংরক্ষণ ও ভোক্তাদের স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে নিয়ম মানার নির্দেশনা দেয়া হয়। সুপারশপ কর্তৃপক্ষও নির্দেশনা মেনে চলবেন বলে অঙ্গীকার করেন।

অভিযানকালে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোহাইমেনা শারমিন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক আব্দুল খালেক মজুমদার, মনিটরিং অফিসার আসলাম উদ্দিন, অন্যান্য সাপোর্ট স্টাফ এবং আনসার সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এনএইচ/এএএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]