অবিলম্বে ন্যাশনাল সার্ভিস প্রকল্প স্থায়ীকরণের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৩১ পিএম, ১১ জুন ২০২১

ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচিতে ২ বছর স্বল্প বেতনে কাজ করে অসন্তুষ্ট কর্মীরা। বর্তমান বেতনে পরিবারের মৌলিক চাহিদা পূরণ করাও সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন তারা। তারা বলছেন, কিছু ভুল নীতিমালা এবং সংশ্লিষ্ট অধিদফতরের দুর্নীতির কারণে এ প্রকল্প সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। অবিলম্বে ন্যাশনাল সার্ভিস প্রকল্পের নীতিমালা সংস্কার ও কর্মকাঠামোর পরিবর্তন এবং প্রকল্প স্থায়ীকরণের দাবিতে সমাবেশ করছে বাংলাদেশ ন্যাশনাল সার্ভিস পরিষদ।

শুক্রবার (১১ জুন) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সংগঠনের সভাপতি আতিক হাসান রাজা, সাধারণ সম্পাদক আপন খালিদসহ অন্যান্যরা।

সমাবেশে আতিক হাসান রাজা বলেন, ঘরে ঘরে চাকরির নির্বাচনী অঙ্গীকার বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ন্যাশনাল সার্ভিস নামক প্রকল্প চালু করে সরকার। এ প্রকল্পের লক্ষ্য হলো আগ্রহী শিক্ষিত বেকার যুবকদেরকে গঠনমূলক কাজে আত্মনিয়োগ করা। মাত্র ৩ মাসের প্রশিক্ষণ আর ২ বছরের কর্মসংযুক্তি ছিল উক্ত প্রকল্পের মেয়াদ। সবথেকে দুঃখজনক হল এ প্রকল্পে প্রশিক্ষণকালীন দৈনিক ভাতা মাত্র ১০০ টাকা এবং কর্মকালীন দৈনিক ভাতা ২০০ টাকা।

তিনি বলেন, এ প্রকল্পে ৩ মাসের প্রশিক্ষণ ও ২ বছরের কর্মসংযুক্তি দিয়ে দেশের শিক্ষিত বেকারদের দিয়ে গঠনমূলক কাজ করাতে পারলেও দুই বছর যথেষ্ট সময় নয়। এ কারণে এ প্রকল্প সফলতার মুখ দেখেনি।

তিনি আরও বলেন, সরকারের এ ভালো উদ্যোগ কিছু ভুল নীতিমালা এবং সংশ্লিষ্ট অধিদফতরের দুর্নীতির কারণে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। নীতিমালা সংস্কার ও কর্মকাঠামোর পরিবর্তন করলেই উক্ত ন্যাশনাল সার্ভিস প্রকল্প সফলতা পাবে। তাই আমরা ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মীরা ওই ভুল নীতিমালার সংস্কার ও কর্ম কাঠামোর পরিবর্তন চাই ।

বর্তমানে ন্যাশনাল সার্ভিস প্রকল্পের আওতায় কাজ করছেন ২ লাখ ৩৮ হাজার কর্মী।

এনএইচ/এসএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]