লিফটে আটকা পড়ে ৯৯৯ কল, উদ্ধার করল ফায়ার সার্ভিস

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:৪৫ পিএম, ১১ জুন ২০২১

রাজধানীর মিরপুরের পল্লবী থানার বালুঘাট এলাকার একটি ভবনে নিচে নামতে গিয়ে লিফটে আটকা পড়েন ছামিদ ওমর রিমন নামে এক যুবক। এক ঘণ্টা লিফটে আটকে থাকার পর কোনো উপায় না দেখে কল দেন জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে।

শুক্রবার (১১ জুন) সন্ধ্যা ৬টা ৪০ মিনিটের দিকে এই ঘটনা ঘটে। পরে ফায়ার সার্ভিসের কুর্মিটোলা স্টেশনের কর্মীরা গিয়ে অত্যাধুনিক যন্ত্র ব্যবহার করে তাকে উদ্ধার করেন।

লিফটে আটকে পড়া যুবক ছামিদ ওমর রিমন জাগো নিউজকে বলেন, আট তলা থেকে নিচে নামতে গিয়ে সাত তলায় লিফট আটকে যায়। এ সময় লিফট ইঞ্জিনিয়ারকে ফোন দেয়া হলেও তিনি আসেননি। প্রায় এক ঘণ্টা লিফটে আটকে থাকার পর কোনো উপায় না দেখে ৯৯৯-এ ফোন করা হয়। ৯৯৯ থেকে ফোন পাওয়ার ১৫ মিনিটের মধ্যে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে উদ্ধার কাজ চালায়। প্রায় পৌনে দুই ঘণ্টা আটকে থাকার পর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের সহায়তায় লিফট থেকে বের হই।

jagonews24

এ বিষয়ে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স কুর্মিটোলা স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার শফিকুল ইসলাম জানান, মিরপুরের পল্লবী থানার বালুঘাট এলাকার ২৬/২ নম্বর ভবনের আট তলা থেকে নিচে নামার জন্য লিফটে উঠেন ওই ভবনের বাসিন্দা ছামিদ ওমর রিমন। কিন্তু লিফট সাত তলায় এসে থেমে যায়। আটকা পড়েছেন বুঝতে পেরে তিনি কল দেন জাতীয় জরুরি সেবা সেল ৯৯৯-এ।

পরে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা গিয়ে অত্যাধুনিক যন্ত্র ব্যবহার করে লিফটের বন্ধ দরজা খুলে আটকে পড়া রিমনকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে। উদ্ধার হওয়া রিমনের বাড়ি মুন্সিগঞ্জ জেলার লৌহজং উপজেলায়। তার পিতার নাম মনির হোসেন।

শফিকুল ইসলাম আরও জানান, যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে লিফটের সমস্যা হয়ে থাকতে পারে। যথাসময়ে লিফট রক্ষণাবেক্ষণ করলে এ ধরনের দুর্ঘটনা রোধ করা সম্ভব।

টিটি/এআরএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]