স্টার্টআপ বাংলাদেশকে ৪৩ কোটি টাকা দিচ্ছে আইডিয়া প্রকল্প

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৩৭ পিএম, ১৭ জুন ২০২১

উন্নয়নে স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেডকে ৪৩ কোটি টাকা দিচ্ছে তথ্য প্রযুক্তি বা আইসিটি বিভাগের উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমি প্রতিষ্ঠাকরণ (আইডিয়া) প্রকল্প। সিড ও গ্রোথ পর্যায়ের স্টার্টআপদের উন্নয়নে এই বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে।

তাদের ইক্যুইটি বিনিয়োগের লক্ষ্যে আইডিয়া প্রকল্প কর্তৃক ৩টি ধাপে যথাক্রমে ৭ কোটি, ১০ কোটি এবং ৬ কোটি অর্থাৎ সর্বমোট ২৩ কোটি টাকা স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেড কোম্পানিকে প্রদান করা হয়েছে। আগামী ২০২১-২২ অর্থবছরে উক্ত কোম্পানিকে বাকি আরো ২০ কোটি টাকা প্রদান করবে এই প্রকল্প।

আইসিটি বিভাগ জানিয়েছে, সম্প্রতি ঢাকা আগারগাঁওয়ে অবস্থিত আইসিটি টাওয়ারে আইডিয়া প্রকল্পের সভাকক্ষে বাংলাদেশ সরকারের যুগ্ম সচিব ও আইডিয়া প্রকল্পের পরিচালক মো. আব্দুর রাকিব স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেড কোম্পানিকে ৩য় ধাপের ৬ কোটি টাকার চেক প্রদান করেন। স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেড এর পক্ষে এই চেকটি গ্রহণ করেন প্রতিষ্ঠানটির কোম্পানি সেক্রেটারি এ বি এম মনিরুল ইসলাম।

জানা যায়, স্টার্টআপদের নতুন উদ্ভাবনী ধারণাকে উৎসাহিত করে দেশে স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম গড়ে তোলার লক্ষ্যে ২০১৬ সাল থেকে কাজ করছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আইডিয়া প্রকল্প। প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদের দিকনির্দেশনার মাধ্যমে এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদ পলকের নেতৃত্বে এই প্রকল্প গ্রহণ করেছে নানা উদ্যোগ।

ইতোমধ্যে, আইডিয়া প্রকল্পের একটি দক্ষ সিলেকশন কমিটির মাধ্যমে প্রি-সীড পর্যায়ে ১৭৯টি ইনোভেটিভ স্টার্টআপকে অনুদান প্রদানের জন্য মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

সিড ও গ্রোথ পর্যায়ের স্টার্টআপদের ইক্যুইটি অর্থায়নের জন্য আইডিয়া প্রকল্পের মাধ্যমে গত ২০০ সালের মার্চ এ গঠিত হয় দেশের সর্বপ্রথম সম্পূর্ণ সরকারি মালিকানাধীন একটি ভেঞ্চার ক্যাপিটাল কোম্পানি “স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেড”। এই কোম্পানির মাধ্যমে স্টার্টআপদেরকে সিড স্টেজে সর্বোচ্চ ১ কোটি এবং গ্রোথ স্টেজে প্রতি রাঊন্ডে সর্বোচ্চ ৫ কোটি টাকা পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৪৯% ইক্যুইটি বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে।

‘স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেড’ কোম্পানিকে সিড ও গ্রোথ পর্যায়ের উদ্যোক্তাদের উন্নয়নে আইডিয়া প্রকল্প থেকে ৪৩ কোটি টাকা প্রদান করা হচ্ছে। স্টার্টআপদের অর্থায়নের পাশাপাশি তাদের প্রশিক্ষণ, মেন্টরিংসহ দেশিয় ও আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্কিং এর জন্যও এ প্রকল্প বিভিন্ন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

এইচএস/এসএইচএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]