আইএলও কর্মীর ছিনতাই হওয়া জিনিসপত্র উদ্ধার করে প্রশসিংত পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:২৭ পিএম, ১৭ জুন ২০২১

ছিনতাইকারীদের হাত থেকে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) এক কর্মীর মোবাইল ফোন, স্মার্ট ঘড়ি ও আংটি উদ্ধার এবং অভিযুক্তদের গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। কৃতজ্ঞতাস্বরূপ ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মো. শহীদুল্লাহকে প্রশংসাপত্র দিয়েছে জাতিসংঘ বাংলাদেশ অফিসের নিরাপত্তা বিভাগ।

বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) ‘লেটার অব অ্যাপ্লিকেশনে’ জাতিসংঘ বাংলাদেশ অফিসের নিরাপত্তা বিভাগের উপদেষ্টা রমেশ চন্দ্র সিং তেজগাঁও বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. শহীদুল্লাহকে এ প্রশংসাপত্র হস্তান্তর করেন।

প্রশংসাপত্রে রমেশ চন্দ্র সিং জানান, গত ৪ জুন রাত ৯টার দিকে তেজগাঁও বিভাগের শেরেবাংলা নগর থানাধীন ধানমণ্ডি ফুটওভারব্রিজ ক্রসিংয়ে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থায় (আইএলও) কর্মরত প্রতীক রঞ্জন বিশীর মুঠোফোন, স্মার্ট ঘড়ি ও স্বর্ণের আংটি ছিনতাই হয়। বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে শেরেবাংলা নগর থানা পুলিশকে জানানো হয়। শেরেবাংলা নগর থানা পুলিশ স্বল্প সময়ের ছিনতাই হওয়ার মূল্যবান সামগ্রী উদ্ধার করে।

রমেশ চন্দ্র সিং ভারতে ২০ বছর ধরে পুলিশ সার্ভিসে নিয়োজিত ছিলেন। সেই অভিজ্ঞতা থেকে তিনি উল্লেখ করেন, ছিনতাই হওয়া মালামাল উদ্ধার করাটা অত্যন্ত চ্যালেঞ্জিং ও কষ্টসাধ্য বিষয়। তেজগাঁও বিভাগের শেরেবাংলা নগর থানা সেই কাজটিই করে দেখিয়েছে। এটা সম্ভব হয়েছে তাদের আন্তরিকতা এবং সমন্বিত প্রচেষ্টায়।

এ বিষয়ে তেজগাঁও বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মো. শহীদুল্লাহ জানান, গত ৪ জুন জাতিসংঘ অফিসের একজন কর্মকর্তা ধানমন্ডি ৪ নম্বর সড়কের ফুটওভারব্রিজের রোড ক্রসিংয়ের সময় ছিনতাইয়ের কবলে পড়েন। তাৎক্ষণিক বিষয়টি শেরেবাংলা নগর থানা পুলিশকে জানানো হলে আমরা অনুসন্ধান শুরু করি। পরে ছিনতাইকারী চক্রের এক সদস্যকে লক্ষ্মীপুর থেকে গ্রেফতার করে তার কাছ থেকে ছিনতাই করা কিছু মালামাল উদ্ধার করি। এ সময় ছিনতাইয়ে ব্যবহৃত ছুরিও উদ্ধার করা হয়।

তিনি বলেন, জাতিসংঘ কর্মকর্তার বক্তব্য অনুযায়ী, ছিনতাইয়ে অংশ নেয়া তিন সদস্যের সবাইকেই আমরা গ্রেফতারে সক্ষম হই এবং সব মালামাল উদ্ধার করি। গ্রেফতার তিনজনই আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

টিটি/এসএস/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]