চলচ্চিত্র সময়োপযোগী ও জীবন ঘনিষ্ঠ মাধ্যম : সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৪৪ পিএম, ১৮ জুন ২০২১ | আপডেট: ০৯:১৮ পিএম, ১৮ জুন ২০২১

সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেছেন, চলচ্চিত্র শিল্প-সংস্কৃতির একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম। বিশেষ করে বর্তমান পৃথিবীতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের প্রসারের যুগে চলচ্চিত্র অত্যন্ত সময়োপযোগী মাধ্যম। জীবনের সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্না, আনন্দ-বেদনার যথার্থ প্রতিফলন ঘটে বলে এটি সবচেয়ে জীবন ঘনিষ্ঠ মাধ্যম বলে সর্বজনবিদিত।

শুক্রবার (১৮ জুন) বিকেলে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি আয়োজিত ‘তৃতীয় বাংলাদেশ স্বল্পদৈর্ঘ্য ও প্রামাণ্য চলচ্চিত্র উৎসব ২০২১’- এর ভার্চুয়াল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ১৮ হতে ২৫ জুন এই উৎসব চলবে।

সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী বলেন, ১৯৭৪ সালে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই চলচ্চিত্র নিয়ে কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। ২০১৫ ও ২০১৭ সালে শিল্পকলা একাডেমি দেশের ৬৪ জেলায় একযোগে আয়োজন করেছে ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসব’।

২০১৬ ও ২০১৮ সালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি দুইবার ‘বাংলাদেশ স্বল্পদৈর্ঘ্য ও প্রামাণ্য চলচ্চিত্র উৎসব’ আয়োজন করেছে বলে জানান কে এম খালিদ।

jagonews24

তিনি বলেন, এরই ধারাবাহিকতায় তৃতীয়বারের মতো এবার আয়োজিত হচ্ছে এ উৎসব। তিনি এ উৎসব সৃজনশীল সংস্কৃতিকর্মী এবং রুচিবান দর্শকদের মধ্যে মেলবন্ধন সৃষ্টিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আশা ব্যক্ত করেন।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন-সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. বদরুল আরেফীন, বিশিষ্ট চলচ্চিত্র গবেষক ও লেখক অনুপম হায়াৎ এবং বিশিষ্ট চলচ্চিত্র ও বিজ্ঞাপন নির্মাতা অমিতাভ রেজা চৌধুরী।

স্বাগত বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির নাট্যকলা ও চলচ্চিত্র বিভাগের পরিচালক আফসানা করিম (আফসানা মিমি)।

উল্লেখ্য, এবারের উৎসবে প্রায় চার শতাধিক চলচ্চিত্র জমা হয়। সেখান থেকে উৎসবের জন্য নির্বাচকবৃন্দ ৮১টি স্বল্পদৈর্ঘ্য এবং ৩৮টি প্রামাণ্যচিত্রসহ মোট ১১৯টি চলচ্চিত্র মনোনীত করেন। উৎসবে স্বল্পদৈর্ঘ্য ও প্রামাণ্য চলচ্চিত্র উভয়ক্ষেত্রে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র, শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র নির্মাতা এবং বিশেষ জুরি মোট ৩টি বিভাগে পুরস্কারের প্রচলন থাকলেও এ বছর আরও চারটি বিভাগ অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

এগুলো হলো- শ্রেষ্ঠ চিত্রগ্রহণ, শ্রেষ্ঠ সম্পাদনা, শ্রেষ্ঠ শব্দ পরিকল্পনা এবং শ্রেষ্ঠ প্রযোজনা পরিকল্পনা। একইভাবে পুরস্কারের অর্থমূল্যও বৃদ্ধি করা হয়েছে।

আইএইচআর/জেডএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]