নারী কাউন্সিলরদের কাজের বৈষম্য দূর করতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:২৩ পিএম, ২১ জুন ২০২১

নারী কাউন্সিলরদের কাজের বৈষম্য দূর করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম।

সোমবার (২১ জুন) দুপুরে অনলাইনে এক মতবিনিময় সভায় এই মন্তব্য করেন তিনি। ‘শক্তিশালী ঢাকা সিটি করপোরেশন : নারী কাউন্সিলরদের ভূমিকা’ বিষয়ক এই মতবিনিময় সভা আয়োজন করে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, ২০০৯ সালের ৬০ নম্বর ধারা অনুযায়ী নারীরা সিটি করপোরেশনে আসেন নির্বাচন করে। অথচ গেজেট না থাকায় তাদের দায়িত্ব দেয়া সম্ভব হয় না। এ সময় তিনি নারীদের জন্য গৃহীত পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, ঢাকাকে নারীর বাসযোগ্য নগরী হিসেবে গড়ে তোলার জন্য নারী কাউন্সিলরদের ভূমিকা বাড়াতে হবে। তাদের জনপ্রতিনিধিদের দায়িত্ব পালন করতে হবে, জবাবদিহি থাকতে হবে। সনাতনী পদ্ধতি থেকে বের হয়ে আসতে হবে।

স্বাগত বক্তব্যে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু বলেন, নারীর ক্ষমতায়নে একটা অনুকূল সামাজিক, রাজনৈতিক পরিবেশ সৃষ্টির জন্য ধারাবাহিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ। আমরা জানি গণতন্ত্র, সুশাসন, উন্নয়ন নারীর ক্ষমতায়ন- এগুলো অবিচ্ছেদ্যভাবে জড়িত এবং গণতন্ত্র ও সুশাসন প্রতিষ্ঠায় স্থানীয় সরকার এখানে অন্যতম সহায়ক হিসেবে কাজ করে। ঢাকা মহানগর একটি প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী নগর হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ যা বিভিন্ন গণতান্ত্রিক ও মানবাধিকার আন্দোলনের সূতিকাগার। যেকোনো স্থানীয় সরকার যদি সঠিকভাবে কাজ করতে চায় তাকে কেন্দ্রীয় সরকারের সাথে সমন্বয় করে রাষ্ট্রীয় অর্থায়নে নিজস্ব পরিকল্পনায় কাজ করতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সরকার বিভাগের যুগ্মসচিব (নগর উন্নয়ন-২ অধিশাখা) সায়লা ফারজানা বলেন, সরকারকে নানা ধরনের টার্গেট বাস্তবায়নে কাজ করতে হয়। তার মধ্যে নারীর উন্নয়নের জন্য নানামুখী কাজ করতে হয়। নারী কাউন্সিলরদের ভূমিকা বৃদ্ধি করতে হলে তাদের দক্ষতা বৃদ্ধি করতে হবে। তাদের পেছনে রেখে এই টার্গেট বাস্তবায়ন সম্ভব হবে না।

তিনি বলেন, অষ্টম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায়, সংবিধানে, আইনে সামাজিক উন্নয়নে নারীদের অবদান রাখার সুযোগ দেয়ার কথা বলা হচ্ছে। কিন্তু বাস্তবে তাদের কাজ করার ক্ষেত্রে গ্যাপ রয়েছে যেমন- ক্যাপাসিটির গ্যাপ, তথ্যগত গ্যাপ আছে। নির্বাচনী ইশতেহার থাকা দায়িত্বগুলোতে গ্যাপ চিহ্নিত করে বাস্তবায়নে সকলকে কাজ করতে হবে।

সায়লা ফারজানা বলেন, নারী কাউন্সিলরদের নিজ অধিকার, দায়িত্ব ও কর্তব্য সম্পর্কে আরও সচেতন হতে হবে, গুণগত পরিববর্তনে গুরুত্ব দিতে হবে। পুরুষতান্ত্রিক মানসিকতা নারীদেরও দূর করতে হবে, নিজের গ্যাপ চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় জায়গায় যেতে হবে। ওয়ার্কিং গ্রুপ করে পুরো আইনটির সংশোধনের জন্য কাজ করতে হবে।

মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি ফওজিয়া মোসলেম। এছাড়া ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নির্বাচিত কাউন্সিলরদের মধ্যে সাথী আক্তার, জাকিয়া, শিখা, কাসেম মোল্লা, হাসিনা বারী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এমএমএ/বিএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]